1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

কমছে না সঞ্চয়পত্রের সুদ হার

সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানো হবে বলে নানামুখী গুঞ্জন থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা কমছে না। বর্তমান সুদের হারই বহাল থাকছে। খোদ অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রাজধানীর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের এনইসি ভবনে আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট নিয়ে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সঞ্চয়পত্র নিয়ে অনেক কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু আমরা সঞ্চয়পত্রের সুদে হাত দেব না। সুদের হার কমাবো না। তবে এই খাতে কিছু সংস্কারের কথা বলেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, কিছু অবৈধ টাকা এখানে বিনিয়োগ করা হচ্ছে। তাই কয়েক বছর থেকে সঞ্চয়পত্রের বিক্রি হচ্ছে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় অনেক বেশি। এটা কমিয়ে আনতে নতুন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মুস্তফা কামাল বলেন, সঞ্চয়পত্রের অনেক অপব্যবহার হচ্ছে। যাদের জন্য এটি চালু করা হয়েছিল, তাদের বাইরের লোকজনই বেশি সুবিধা নিচ্ছে। অনেকে ঠিকাদারির আর্নেস্টমানি (জামানত) হিসেবে পর্যন্ত সঞ্চয়পত্র দিচ্ছে। এটা চলতে দেওয়া যায় না। যাদের জন্য সঞ্চপত্র চালু করা হয়েছিল, সেটা তাদেরই পাওয়া উচিত। তারাই পাবেন। তাদের সব সুযোগ সুবিধা বহাল থাকবে। কোনো কিছুই কার্টেল (কাটছাঁট) করা হবে না।

সঞ্চয়পত্রের বিক্রি একটি নিয়মের মধ্যে আনতে ইতোমধ্যেই সব ধরনের ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সঞ্চয়পত্র বিক্রির ব্যবস্থা বাতিল করে অনলাইনে বিক্রি কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। সারা দেশে এ পদ্ধতি চালু করতে নির্দেশনা দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। এক লাখ টাকার উপরে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীর করদাতা শনাক্তকরণ নম্বর (ই-টিআইএন) বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

বিনিয়োগ করতে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি ও মোবাইল নম্বর লাগবে। বিনিয়োগকৃত অর্থের আসল ও সুদ সরাসরি চলে যাবে গ্রাহকের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। জাতীয় সঞ্চয়পত্র অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে ৫ বছর মেয়াদি পরিবার সঞ্চয়পত্রের মেয়াদ শেষে ১১.৫২ শতাংশ মুনাফা পাওয়া যায়।

৫ বছর মেয়াদি পেনশন সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার ১১.৭৬ শতাংশ। ৫ বছর মেয়াদি বাংলাদেশ সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ১১.২৮ শতাংশ। ৩ বছর মেয়াদি মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার ১১.০৪। ৩ বছর মেয়াদি ডাকঘর সঞ্চয়পত্রের মুনাফার হার বর্তমানে ১১.২৮ শতাংশ।

More News Of This Category