1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

কৃষকদেরও সিসি ঋণ দিচ্ছে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক

রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব) ব্যবসায়ীদের মতো কৃষকদের জন্যও চলতি মূলধন ঋণ (সিসি) চালু করেছে। দেশের ব্যাংকিং সেক্টরে রাকাবই প্রথম কৃষকদের জন্য এ ঋণ ব্যবস্থার প্রবর্তন করেছে। এ ঋণের নাম দেওয়া হয়েছে ফারমার্স ক্রেডিট লিমিট।

রাকাব সূত্রে জানা গেছে, এ ব্যবস্থায় কৃষককে এক বছরের পুরো ফসলের জন্য একবারে ঋণ মঞ্জুর করা হয়। বছরের মধ্যে কৃষক ফসল তুলে যখন খুশি টাকা জমা দিতে পারেন, তুলতেও পারেন। এ জন্য আর কোনো আনুষ্ঠানিকতার প্রয়োজন পড়ে না।

এক ফসল তুলে যতটুকু জমা দেবেন, তার জন্য আর কোন সুদ ধরা হয় না। পরের ফসলের জন্য এ টাকা তুলতে পারেন। বছর শেষে শুধু সুদ পরিশোধ করে এ ঋণ নবায়ন করা যায়।

প্রচলিত শস্য ঋণে একজন কৃষককে শুধু এক বছরে একটি ফসলের জন্য একবার ঋণ দেওয়া হতো। কিন্তু সিসি ঋণ ব্যবস্থায় একজন কৃষককে এক বছরের জন্য (কমপক্ষে তিনটি ফসলের জন্য) ঋণ দেওয়া হয়।

এ ঋণ এক বছরের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে। পরিশোধ করতে না পারলেও অসুবিধা নেই। শুধু সুদের টাকা দিয়ে আবার এক বছরের জন্য নবায়ন করা যাবে। সে ক্ষেত্রে শুধু একটা সাদা কাগজে দরখাস্ত দিলেই হবে। বাড়তি অন্য কোন কাগজ জমা দিতে হয় না।

এ বিষয়ে ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) জগন্নাথ ঘোষ জানান, এ ঋণ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে। প্রথম বছর ২৩২ জন কৃষককে ৭ কোটি ৬৬ লাখ ৬৮ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে এই খাতে ২০০ কোটি টাকা ঋণ দেওয়া হয়।

রাজশাহীর তানোরের কৃষক সিরাজুল ইসলাম এ ঋণ নিয়েছেন। তিনি জানান, এ ঋণ কৃষকের জন্য খুবই উপকারী। কাগজপত্র ঠিকঠাক থাকলে এ ঋণ পেতে বাড়তি কোনো ঝামেলা নেই।

রাকাবের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খোন্দকার গোলাম মোস্তফা বলেন, এটা রাকাবের একটি উদ্ভাবন। দেশের আর কোনো ব্যাংকে এ পদ্ধতিতে কৃষকদের ঋণ দেওয়ার ব্যবস্থা নেই। বছর শেষে শুধু সুদ পরিশোধ করেই ঋণ নবায়ন করা যায়। এ জন্য এ ঋণের কোনো খেলাপি নেই। তথ্যসূত্র: ইত্তেফাক।

More News Of This Category