1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

কেন পড়বে ব্যবস্থাপনা!

ইতিহাস, বিজ্ঞান, সাহিত্য, প্রকৌশল…কত রকম বিষয় আছে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে। কোন বিষয়টিতে আমি পড়ব, সিদ্ধান্ত নেওয়াই কঠিন। ‘স্বপ্ন নিয়ে’র এই বিভাগে আমরা একেকটি বিষয়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেব। দ্বিতীয় পর্বে ‘ব্যবস্থাপনা’ সম্পর্কে বলেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক মো. মোশাররফ হোসেন।

কী পড়ানো হয়? ব্যবস্থাপনার সার্বিক নীতি, পদ্ধতি, মডেল ও তত্ত্ব পড়ানোর মাধ্যমে ব্যক্তি যেমন ব্যবসা পরিচালনা সম্পর্কে জানতে পারেন, তেমনি জানতে পারেন ব্যক্তি ও সামাজিক জীবনের নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালন পদ্ধতি—যা থেকে নিশ্চিতভাবে উপকৃত হচ্ছে দেশ, সমাজ ও রাষ্ট্র। সব ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপনা রয়েছে।

গ্রিক দার্শনিক সক্রেটিসের একটি কথায় বিষয়টি ভালোভাবে প্রকাশ পেয়েছে। আজ থেকে প্রায় আড়াই হাজার বছর আগে তিনি বলেছিলেন, ‘ব্যবস্থাপনা সর্বজনীন।’ চিকিৎসাবিজ্ঞানের পূর্ণাঙ্গ জ্ঞান ছাড়া যেমন সঠিক রোগ নির্ণয় সম্ভব নয়, তেমনি ব্যবস্থাপনার তাত্ত্বিক ও প্রায়োগিক জ্ঞান ছাড়া কার্যকর ও দক্ষ ব্যবস্থাপনা সম্ভব নয়। তাই এ বিষয়ে জ্ঞান লাভ করা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

একজন স্মার্ট, যুগোপযোগী এবং আদর্শবান নেতা তৈরি করতে আমরা শেখাতে চাই ব্যবস্থাপনা। একটি প্রতিষ্ঠান যথার্থরূপে পরিচালনার প্রায় সবকিছুই এখানে পড়ানো হয়।

ভবিষ্যৎ কী? বর্তমানে যেকোনো বিষয়ের তুলনায় ব্যবস্থাপনার ভবিষ্যৎ ভালো। বিশ্বায়নের যুগে যেকোনো দেশের ব্যবসায়-বাণিজ্যে প্রভাব ফেলে গোটা বিশ্ব। প্রতিযোগিতাটাও অনেক বড়। তাই ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা দিন দিন জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। এই জটিল কার্যক্রম সুচারুরূপে সম্পন্ন করার জন্য ব্যবস্থাপনার বিশেষায়িত জ্ঞান অপরিহার্য।

দিন দিন দেশে-বিদেশে ব্যবস্থাপনা ডিগ্রিধারীদের কদর বাড়ছে। পৃথিবীর বিবর্তনে ব্যবস্থাপনার গতি-প্রকৃতি প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে এবং সেই সঙ্গে দক্ষ ব্যবস্থাপকের প্রয়োজনীয়তা বাড়ছে। যত দিন পৃথিবী থাকবে, ব্যবস্থাপনা বিষয়ের অস্তিত্ব তত দিন স্বমহিমায় বিরাজমান থাকবে।

ক্যারিয়ার কোথায়? চাকরির বাজারে নিয়োগকর্তা শুধু ব্যক্তি নিয়োগ করেন না, নিয়োগ করেন তার দক্ষতাও। ব্যবস্থাপনা বিষয়ে মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা অধ্যয়নের মধ্য দিয়ে ব্যক্তিকে সেই দক্ষতায় পারদর্শী করে তোলা হয়। তাই নিয়োগকর্তা নির্দ্বিধায় ওই দক্ষ কর্মীকে নিয়োগ করে লাভবান হতে পারেন।

ক্যারিয়ার হিসেবে ব্যবস্থাপনার শিক্ষার্থীরা ব্যবসায়-বাণিজ্য, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, বিশেষায়িত প্রকল্প—এককথায় সব ক্ষেত্রে তাদের অগ্রাধিকার রয়েছে। ব্যবস্থাপনায় চাকরির সুযোগ ব্যাপক।

কারা পড়বে? যদি তোমার থাকে নেতা হওয়ার নেশা, চলে এসো ব্যবস্থাপনায়। যারা স্বাধীন পেশায় থাকতে চায়, সমাজকে নেতৃত্ব দিতে চায়, সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটাতে চায়, সফল উদ্যোক্তা হতে চায় এবং সুন্দর ভবিষ্যৎ বিনির্মাণের স্বপ্ন দেখে—তারাই পড়বে ব্যবস্থাপনা। তথ্যসূত্র: প্রথমআলো।

More News Of This Category