1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :
সফলতার গল্প :

গুরুত্বপূর্ণ সার্টিফিকেট কোর্স!

অনেক সময় ভালো চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে কেবল স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রিই যথেষ্ট নয়। পুঁথিগত বিদ্যা ক্যারিয়ারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে কাজ করতে হয় হাতে-কলমে, আর নির্দিষ্ট বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও জ্ঞান অর্জন কাজে বাড়ায় দক্ষতা। তাই প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনা যখন শেষের দিকে, তখন চাকরির প্রস্তুতি নেয়ার সময় প্রয়োজনীয় কিছু কোর্স করে রাখা যেতে পারে

ম্যানেজমেন্ট সার্টিফিকেট: ম্যানেজমেন্ট সার্টিফিকেট কোর্স একজন ব্যক্তিকে কর্মপরিবেশে দক্ষ নেতা হয়ে উঠতে সহায়তা করে। ম্যানেজমেন্টে ডিগ্রি লাভ ব্যক্তিকে উপযুক্ত কাজের দরজা খুলে দেয়, অন্যদিকে ম্যানেজমেন্ট সার্টিফিকেট কোর্স যদি করা থাকে, তাহলে তা কাজে সফলতা অর্জনের সিঁড়ি হিসেবে কাজ করে। ম্যানেজমেন্ট সার্টিফিকেট কোর্সগুলোয় সাধারণত ব্যবসায়িক যোগাযোগ ও ব্যবস্থাপনা, বিপণন, আইন ও ক্রয়ের নীতিমালা সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়। ফলে এ কোর্সটি শিক্ষার্থীর ব্যবসায়িক যোগাযোগ দক্ষতা বাড়াতে ও আধুনিক ব্যবসায় স্থাপনে সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারে।

কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন সার্টিফিকেট: বর্তমান সময়ে একটি আধুনিক অফিসে কাজ করতে হলে অবশ্যই কম্পিউটার বিষয়ে ধারণা থাকতে হবে। তিন থেকে ছয় মাসব্যাপী কোর্সগুলোয় মূলত অ্যাডভান্স কম্পিউটার আর্টিটেকচার, কম্পিউটার গ্রাফিকস মাল্টিমিডিয়া, কম্পিউটার নেটওয়ার্কস, অ্যাডভান্স অপারেটিং সিস্টেম, ইন্টারনেট প্রোগ্রামিং অ্যান্ড ওয়েব ডিজাইন ইত্যাদি বিষয় থাকে। সবার সুবিধার্থে সাধারণ এসব কোর্সের ক্লাস সপ্তাহে তিন-চারদিন চলে।

কম্পিউটার প্রোগ্রামিং সার্টিফিকেট: কম্পিউটার কোর্সের চেয়ে এ কোর্সটি একটু বেশিই প্রযুক্তিগত। এ কোর্স মূলত সেসব ছাত্র-ছাত্রীর জন্য, যারা প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডিজাইন, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদিতে ক্যারিয়ার গড়তে ইচ্ছুক। এ ধরনের কোর্সগুলো সাধারণত আট থেকে ১৬ সপ্তাহ মেয়াদি হয়ে থাকে।

অ্যাকাউন্টিং টেকনেশিয়ান সার্টিফিকেট: এ কোর্সটি অ্যাকাউন্টিং রেকর্ড জমা রাখতে, নিয়মিত অফিস পরিচালনা, অডিট ও ট্যাক্স হিসাব রাখায় সহায়তা করে।

মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা-বিষয়ক সার্টিফিকেট: অফিস-প্রশাসন ব্যবস্থাপনায় সাহায্য করে এ কোর্সটি। কোনো প্রতিষ্ঠানে নির্বাহী পদের জন্য প্রস্তুত হতে সহায়তা করে এ ধরনের কোর্সগুলো।

ফ্যাশন ডিজাইনিং অ্যান্ড টেকনোলজি: বর্তমানে তরুণদের মধ্যে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ে কাজ করার চাহিদা বাড়ছে। দেখা গেল, পড়াশোনা শেষ করার পর কেবল ফ্যাশন ডিজাইন নিয়ে কাজ করার লক্ষ্যেই অনেকে এ বিষয়ে সার্টিফিকেট কোর্স করে নিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে এ সার্টিফিকেট উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়া ছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি পাওয়ার জন্য সহায়ক হয়ে ওঠে।

তথ্যসূত্র: ক্যাপিটাল এফ এম

More News Of This Category