1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :

চলতি অর্থবছরে সেবা খাতে রফতানি আয় বেড়েছে ৪৮৫ কোটি

চলতি (২০১৮-১৯) অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) দেশের সেবা খাতে রফতানি আয় হয়েছে ৪৮৫ কোটি ৮৪ লাখ ডলার। যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪২ দশমিক ৫৮ শতাংশ বেশি। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত হালনাগাদ পরিসংখ্যানে এ তথ্য উঠে এসেছে।

ইপিবি জানিয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সংগ্রহকৃত পরিসংখ্যান থেকে মোট তিনটি ভাগে সেবা খাতের রফতানি আয় সংকলন করা হয়েছে। ভাগগুলো হচ্ছে- গুডস প্রকিউরড ইন পোর্টস বাই ক্যারিয়ারস, গুডস সোল্ড আন্ডার মার্চেন্টিং ও সার্ভিসেস।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৮ জুলাই থেকে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত দেশের সেবা খাত থেকে রফতানি আয় হয়েছে ৪৮৫ কোটি ৮৪ লাখ ৬০ হাজার ডলার। যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৪২ দশমিক ৫৮ শতাংশ বেশি। আগের (২০১৭-১৮) অর্থবছরের একই সময় আয়ের পরিমাণ ছিল ৩৪০ কোটি ৭৫ লাখ ৬০ হাজার ডলার।

এদিকে, ১০ মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে সেবায় রফতানি বেড়েছে ১৬ দশমিক ৫৭ শতাংশ। জুলাই-এপ্রিল সময়ের বিভিন্ন ধরনের সেবা রফতানি খাতে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪১৬ কোটি ৬৬ লাখ ৭০ হাজার ডলার। রফতানির এ আয়ের মধ্যে সরাসরি সেবাখাত থেকে এসেছে ৪৭৬ কোটি ২৭ লাখ ৮০ হাজার ডলার। বাকিটা দেশের বন্দরগুলোতে পণ্যবাহী জাহাজগুলোর কেনা পণ্য ও সেবা এবং মার্চেন্টিংয়ের অধীনে পণ্য বিক্রির আয়।

ইপিবির তথ্য অনুযায়ী, একক মাস হিসাবে চলতি বছরের এপ্রিলে সেবা খাতে আগের বছরের তুলনায় রফতানি আয় বেশি হয়েছে ২৮ দশমিক ৯৫ শতাংশ। এপ্রিল মাসে আয় হয়েছে ৫৪ কোটি ১১ লাখ ৯০ হাজার ডলার। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৪১ কোটি ৯৬ লাখ ৮০ হাজার ডলার। আর এপ্রিল মাসে সেবাখাতে কৌশলগত টার্গেট ছিল ৪১ কোটি ৬৬ লাখ ৬০ হাজার ডলার। সে হিসেবে টার্গেট থেকে আয় বেশি হয়েছে ২৯ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

সেবার অন্য উপখাতগুলোর মধ্যে অন্যান্য ব্যবসায় সেবা থেকে ৮৩ কোটি ৪৪ লাখ ৬০ হাজার ডলার, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি থেকে ৪৬ কোটি ১৪ লাখ ২০ হাজার ডলার, বিভিন্ন ধরনের পরিবহন সেবা থেকে ৫৬ কোটি ৫৯ লাখ ১০ হাজার ডলার, বীমা ছাড়া আর্থিক সেবা খাত থেকে ১১ কোটি ১৯ লাখ ৯০ হাজার ডলার এবং ভ্রমণ সেবা উপখাত থেকে ৩১ কোটি ৩৩ লাখ ২০ হাজার ডলার রপ্তানি আয় হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে রফতানি হওয়া সেবা পণ্যের মধ্যে রয়েছে- ম্যানুফ্যাকচারিং সার্ভিসেস অন ফিজিক্যাল ইনপুটস, মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড রিপেয়ার, ট্রান্সপোরশন, কনস্ট্রাকশন সার্ভিসেস, ইন্স্যুরেন্স সার্ভিসেস, ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, চার্জেস ফর দি ইউজ অব ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি, টেলিকমিউনিকেশন সার্ভিসেস, আদার বিজনেস সার্ভিসেস, পার্সোনাল কালচার রিক্রিয়েশনাল ও গভর্নমেন্ট গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস। তথ্যসূত্র: যুগান্তর।

More News Of This Category