1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :
সফলতার গল্প :

চাকরি ছেড়ে বিজনেস করতে যোগ্যতা লাগে!

বছরের পর বছর চাকরি করছেন। বেশ তো কেটে যাচ্ছে নিরাপত্তার চাদর মুরিয়ে। মাস গেলেই নির্দিষ্ট অংকের বেতন। ঘন্টা মাপা অফিস। নির্দিষ্ট কিছু কাজ। বাড়তি কিছু সুযোগ সুবিধা। সেই ছোট বেলার বড় বড় স্বপ্নগুলো এখন আর দেখতে হয়না। বড় হয়ে যা হবেন বলে ভেবেছিলেন অবশ্য তা এখন আর আপনাকে তাড়িয়ে বেড়ায় না।

আপনার সমস্ত স্বপ্নগুলো এখন একটা চাকরিকে ঘিরেই। সংসার, সচ্ছলতা, ভবিষ্যত সব কিছুই এই চাকরি। আপনি মন প্রাণ দিয়ে চাকরিকে ভালবেসে ফেলেছেন। না হলেও ভালবাসতে হচ্ছে। কারন ওই চাকরিই আপনার সম্বল। আপনার নিশ্চয়তা। কিন্তু বুঝতেও পারছেন না, আপনি যে প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন সেই প্রতিষ্ঠান আপনাকে কখন ভুলে যাবে।

আপনার সর্বময় প্রশান্তি, চাকরিই আপনাকে বাঁচিয়ে রেখেছে। কিন্তু আপনার ভিতরে থাকা প্রতিভাকে তো গলা টিপে হত্যা করে চলেছে প্রতি মুহুর্তে, সে খবর কি রেখেছেন? প্রতিদিন অফিস টাইমে যাতায়াতের জন্য বাসে ঝুলে ঝুলে আপনার পুরো লাইফটা যে ঝুলিয়ে দিয়েছেন সে চিন্তা কি করেছেন? করেন নি।

মাস গেলে যে বেতন দিয়ে আপনার শ্রমটা কিনে নিয়েছে, সে আপনার মানসিক নিয়ন্ত্রনও নিয়ে নিয়েছে এটা বুঝতেও পারেননি। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে চাকরিরত অবস্থায় বিয়ে করলে মালিকপক্ষ নীরবে খুশি হয় বিশেষ করে মার্কেটিং এর চাকরিগুলোতে। জানেন কেন? চাকুরী ছেড়ে দেওয়া, চাকরি বদলের প্রবণতা কমে যায়। সেই সাথে মালিকপক্ষ আপনার সর্বোচ্চ টুকু লুফে নেওয়ার প্রচেষ্টায় সফলতা পায়।

আপনি প্রতি মাসে আপনার হাত দিয়ে কোম্পানীর জন্য বড় বড় ডিল করে থাকেন। যার মাধ্যমে কোম্পানীর কোটি কোটি টাকা প্রফিট হয়। একটি মাস আপনার আউটপুট জিরো করেন? কোম্পানী আপনাকে পেছনে লাথি দিয়ে অন্যকে আপনার জায়গায় বসিয়ে দিবে। আপনাকে ময়লা ফেলার ডাষ্টবিনে ফেলতে একটুও দেরী করবে না।

কোম্পানী তার লাভের জন্য আপনাকে পুষে রাখছে, আপনার লাভের জন্য না। আপনি যতক্ষণ কোম্পানীকে দিতে পারবেন ঠিক ততক্ষণই আপনি কোম্পানীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ। দুধাল গরুর কদর একটু বেশীই থাকে। দুধ ফুরালে গোয়ালের কোনেও জায়গা হয় না। করবেন তো অনেক কিছুই, চাকরির পাশাপশি ব্যবসা। আর কিছু দিন চাকরি তারপর ব্যবসা।

চাকরি দিয়ে শুরু করব সাথে ব্যবসার একটা লাইনঘাট করে ফেলব। চাকরি করে কিছু পুঁজি জমিয়েই ব্যবসা শুরু করব। অল্পকিছু দিন তারপর আর না। পেনশনের এককালীন টাকাটা পেয়েই জলে ফেলব চিন্তা কিসের। তারপর বিশ্বসেরা ধনী হিসেবে আমার নাম প্রকাশিত হবে টাইমস পত্রিকায়। এমন নানা অজুহাতের বাক্সটা এবার বন্ধ করুন।

নিজের যোগ্যতায় বহু কষ্টে চাকুরী হলেও চাকরি ছাড়ার মত যোগ্যতা এখনও আপনার হয়নি। স্বাধীনতা অর্জনের জন্য যে ত্যাগ প্রয়োজন সেই ত্যাগী হয়ে ওঠার মত সাহসী হওয়া এত সহজ নয়। বাস্তবতার গল্পগুলো শুনতেই ভাল লাগে। বাস্তব করাটা মুখের কথা নয়। জীবনে বড় কিছু করতে চাইলে আপনাকে ঝুঁকি নিতেই হবে। সেটা হোক সাময়িক কিংবা স্থায়ী।

যারা ঝুঁকি নিয়েছে তারা বড় কিছু করেছে। দৃঢ় বিশ্বাস, সঠিক পরিকল্পনা, আর র্ধৈয্য আর মেধার সমন্বয়ে সাফল্যের চুড়ায় ঠিক পৌছেছে। চাকরি ছাড়তে সত্যিই অনেক বেশী সাহস লাগে। অনেক বড় যোগ্যতা লাগে। যারা এই যোগ্যতাকে প্রমাণ করতে পারে তারা ঠিকই সফলতার দেখা নিশ্চিত পাবে। সাহস করেই দেখুন অফুরান্ত সম্ভাবনার দুয়ার আপনার জন্য খোলা আছে। লেখক: মোঃ মাসুদুর রহমান মাসুদ, উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম।

More News Of This Category