নতুন দেয়াল পুরানো ষ্টাইলে সাজাতে চাইলে!

চার দেয়ালের মধ্যেই কাটে দিনের বড় একটা সময়। মানে নিজের বাড়ি। এই বাসস্থানের দেয়ালের সাজসজ্জার বিষয় গুরুত্বপূর্ণ। অনেকেই দেয়ালে বাড়তি জিনিস লাগান না। বরং দেয়ালে রঙের মাধ্যমে তৈরি করেন ভিন্নতা। অনেকে দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখেন ছবি, আয়না, নকশি কাঁথা, প্লেট ইত্যাদি। তবে ইদানীং অনেকেই দেয়ালসজ্জায় বেছে নিচ্ছেন পুরোনো আমলের জিনিস। দেয়ালে পুরোনো দেয়ালঘড়ি, শো-পিস, ছবি কিংবা শুধু প্লেটের ব্যবহারেই অন্দরসাজে চলে আসবে অভিজাত ও জমকালো ভাব।

অন্দরের সবগুলো দেয়াল সম্ভব না হলে, দু-একটি দেয়াল ভিনটেজ স্টাইলে (পুরোনো ধাঁচে) সাজানো যেতে পারে বলে জানান, স্থাপত্যবিষয়ক প্রতিষ্ঠান ডিজাইন স্টেশনের ডিজাইনার এবং অন্যতম স্বত্বাধিকারী এস এম আনিসুল হক। যেকোনো ঘরের একটি দেয়ালে রঙের বৈপরীত্য (কনট্রাস্ট কালার) এনে বা ওয়ালপেপার ব্যবহার করে আকর্ষণের কেন্দ্রে পরিণত করা সম্ভব।

পুরোনো দিনের আমেজ নতুন আঙ্গিকে ফিরিয়ে আনতে জমকালো ফ্রেমে সাদা-কালো ছবি রাখা যেতে পারে। পুরোনো আমলের পয়সা বা পিতলের কোনো অ্যান্টিক শো-পিস সুন্দর ফ্রেমে বাঁধিয়ে রাখা যায়। ফিউশন ধারা আনতে চাইলে নতুন এবং পুরোনো আমলের শো-পিস একসঙ্গে সাজিয়ে রাখতে পারেন দেয়ালের সঙ্গে লাগানো তাকে। এখানে খুব উজ্জ্বল আলো না দিয়ে গ্যালারির মতো হালকা আলো-ছায়ার খেলা থাকলে ভালো লাগবে। সে ক্ষেত্রে স্পটলাইট বেছে নিতে পারেন।

ভিনটেজ স্টাইলে অন্দর সজ্জার মূল বিষয়টিই হলো ছোট ছোট অনেক জিনিসকে একসঙ্গে রাখা। তা যেকোনো কিছু দিয়েই করা সম্ভব। বসার ঘরের দেয়ালে থালার মতো শো-পিস, পারিবারিক ছবি বা পেইন্টিং, আয়না দিয়ে সাজানো যেতে পারে। খাবার ঘর কিংবা বড় রান্নাঘরে তামা বা পিতলের তৈরি সসপ্যান বা ফ্রাইপ্যান ঝুলিয়ে দিয়ে বৈচিত্র্য আনা সম্ভব। শোবার ঘর সাজাতে অনেকটা স্বাধীন থাকা যায়। পছন্দমতো যেকোনো কিছু দিয়েই সাজানো যায় দেয়াল। ফুলেল নকশার পেইন্টিং অথবা শখ করে সংগ্রহ করা যেকোনো জিনিস দিয়ে সাজাতে পারেন। চাইলে শেলফ বা তাক তৈরি করে তাতেও ছোট ছোট শো-পিস রাখা যায়।

ব্রিটিশ ভিনটেজ স্টাইল মেনে নিজ বাড়ির অন্দর সাজিয়েছেন ডিভাইন বিউটি লাউঞ্জের অংশীদার এবং মেকআপ আর্টিস্ট বাপন রহমান। দেয়ালগুলোকে ক্যানভাস হিসেবে চিন্তা করেন তিনি। তাই বাড়ির দেয়ালজুড়েই নানা রঙের খেলা। হালকা রঙের দেয়াল পুরোনো আমলের শো-পিস দিয়ে ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি। বাহারি নকশার থালাগুলো নজর কাড়ার মতো।

এ ছাড়া রয়েছে মুঘল ঘরানার পেইন্টিং এবং নামীদামি চিত্রকরদের আঁকা সব ছবি। ম্যানিলা, দুবাই, ভারত, ভুটানসহ অনেক দেশ থেকে তিনি এসব জিনিস সংগ্রহ করেছেন বলে জানান বাপন রহমান। অন্দর সজ্জায় যেকোনো একটি স্টাইল মেনে চলার পরামর্শ দেন তিনি। বাড়ির অন্যান্য আসবাবের সঙ্গে মিলিয়ে দেয়াল সাজানো উচিত।

তথ্যসূত্র: প্রথমআলো ডটকম।

SHARE