1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :

নিয়মিত দাঁত ব্রাশ হৃদ রোগের ঝুঁকি কমায়

দিনে তিনবার দাঁত ব্রাশ করলে কমবে হৃদরোগের আশঙ্কা। কথাটি অনেকেই উড়িয়ে দিতে পারেন বা অনেকের কাছেই বিষয়টি হাস্যকর মনে হতে পারে। কিন্তু এটা সত্যি। সম্প্রতি একটি গবেষণার ফলাফলে এ কথা বলা হয়েছে। গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে ইউরোপিয়ান জার্নাল অব প্রিভেনটিভ কার্ডিওলজিতে।

গবেষণাটি কোরিয়ান ন্যাশনাল হেলথ ইন্স্যুরেন্সের আওতাধীন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৮৬ জন ব্যক্তির ওপর করা হয়েছে। শুরুর দিকে এদের কারোরই হৃদ-সংক্রান্ত কোনো রোগ যেমন হার্টফেল, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন অথবা হার্টের ভাল্বে কোনো সমস্যা ছিলো না। গবেষণাটি প্রায় সাড়ে ১০ বছর ধরে করা হয়েছে। গবেষণার শুরুতে প্রত্যেক ব্যক্তির মেডিকেল টেস্ট করা হয়েছিল।

তাদের মুখগহ্বরের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পাশাপাশি তাদের উচ্চতা, ওজন, জীবনধারণের পদ্ধতি, মুখগহ্বরের স্বাস্থ্য এসব বিষয়ে রিপোর্ট সংগ্রহে রাখা হয়েছিল। গবেষণার ফলাফলে বেরিয়ে আসে কমপক্ষে তিনবার দাঁত মাজার অভ্যাস হার্টফেলের আশঙ্কা ১২ শতাংশ এবং অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশনের আশঙ্কা ১০ শতাংশ কমিয়ে দেয়। হৃদরোগের সঙ্গে দাঁত ব্রাশের সম্পর্ক কোথায়? এমন প্রশ্ন মনে জাগতে পারে।

হৃদরোগের সুস্থতার সঙ্গে মুখগহ্বরের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত গবেষণা খুব কম রয়েছে। এর আগে ২০১৬ সালে ডেন্টাল রিসার্চ জার্নালে একটি গবেষণা প্রকাশিত হয়েছিল। এ গবেষণায় করোনারি সিনড্রমে (এ সিনড্রমের কারণে হৃদরোগ হতে পারে) আক্রান্ত ব্যক্তিদের নেয়া হয়েছিল। নতুন গবেষণাটি মুখগহ্বরের পরিচ্ছন্নতার সঙ্গে হৃদরোগের সংযোগ কোথায়, সেটা নিয়েই করা।

এর গবেষকরা বলছেন, দাঁত অপরিষ্কার থাকলে অনেক ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। এগুলো রক্তকে দূষিত করে, প্রদাহ সৃষ্টি হয়। আর এ কারণেই অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন হতে পারে। এর থেকে হার্টফেল করার মতো ঝুঁকিও তৈরি হয়। রক্তের প্রবাহে ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণ হার্টের ভাল্বের ক্ষতি করে থাকে, যাকে এন্ডোকার্ডাইটিস বলা হয়।

হৃদযন্ত্রে তিনটি স্তর আছে। এগুলোর নাম পেরিকার্ডিয়াম, মায়োকার্ডিয়াম ও এন্ডোকার্ডিয়াম। সবচেয়ে ভেতরের স্তর এন্ডোকার্ডিয়ামের প্রদাহকে, এন্ডোকার্ডাইটিস বলা হয়। এন্ডোকার্ডিয়ামে প্রদাহ ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণে হয়ে থাকে। ব্যাকটেরিয়া মুখ দিয়ে প্রবেশ করে রক্তে মিশে যায় এবং এন্ডোকার্ডিয়ামকে আক্রান্ত করে। এতে হৃদপিণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

গবেষণায় আরো বের হয়ে আসে, শুধু বাড়িতে ব্রাশ করা নয়, যারা নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার রাখেন, তাদের হৃদরোগ হওয়ার ঝুঁকি অনেক কম। এছাড়া দাঁত ব্রাশে দাঁতের ক্ষয়রোধসহ যেকোনো সংক্রমণ যেমন জিংজিভাইটিস কমে যায়। এগুলো দেহে প্রদাহ সৃষ্টি করে থাকে। আর প্রদাহের কারণে স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা থাকে। তাই হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার রাখতে হবে।

তবে কেউ যদি দিনে তিনবার ব্রাশ করতে না পারে, সেক্ষেত্রে চাপ নেয়ার কোনো কারণ নেই। সর্বোপরি, দাঁতকে সুস্থ রাখাই হলো গুরুত্বপূর্ণ। দাঁত ব্রাশ না করলে হৃদরোগ হবে আর করলে হবে না, এমনটি কিন্তু গবেষকরা বলছেন না। তাদের মতে, নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার রাখলে ব্যাকটেরিয়া জন্মায় না, যেটা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। হৃদরোগের ঝুঁকি কিছুটা কমবে। তবে দাঁত ব্রাশের পাশাপাশি নিয়মিত শারীরিক ব্যায়াম করা, শাকসবজি ও ফলমূল খাওয়া, দুশ্চিন্তা থেকে নিজেকে দূরে রাখার কাজগুলোও করতে হবে। সূত্র: প্রিভেনশন

More News Of This Category