1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

পরিবারের সবার কথা ভেবে তৈরী গাড়ি!

বাংলাদেশের গাড়ির বাজারে বেশ ভালোভাবেই দখল করে রেখেছে জাপানি গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান টয়োটা। আরো একটু সহজ করে বললে বলা যায় দিনের শুরু থেকে শেষ অবধি, রাস্তায় নজর দিলে টয়োটা গাড়ির সংখ্যা গুনে শেষ করা কঠিন হবে। টয়োটা গাড়ির সরঞ্জামাদির সহজলভ্যতা আর সাধ্যের মধ্যে শখের পুরোটাই পূরণ করা সম্ভব বলেই হয়তো এ গাড়ির জনপ্রিয়তা এ দেশে বেশি।

টয়োটার প্রিয়াস সিরিজের গাড়িগুলোও গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করেছে এ দেশে। প্রিয়াসের বড় সুবিধাই হচ্ছে এর ভেতরটা বেশ প্রশস্ত। অন্যদিকে গেল কয়েক বছরে দেশে হাইব্রিড গাড়ির কদর বেড়েছে অনেকখানি। সেদিক থেকেও প্রিয়াস ভোক্তার চাহিদার অন্তরালে। যেমনটা বলা যেতে পারে প্রিয়াস আলফা ২০১৪-এর মডেলের কথা।

সাত আসনবিশিষ্ট এ সিরিজের হাইব্রিড গাড়িগুলোকে ফ্যামিলি সাইজ গাড়ি বললেও খুব একটা ভুল হবে না। পরিবারের সবাইকে নিয়ে ঘুরতে বেরোনোর ক্ষেত্রে ছোট্ট গাড়ি একটা সমস্যা বটে।

সেদিক থেকে ২০১৪-এর প্রিয়াস আলফা ভালো সমাধান। গাড়ির পেছনের দিকে বাড়তি স্থানটুকু রাখার কারণই মূলত এটি যে আরোহী বেড়ে গেলে পেছনের দিকে বাড়তি দুটো সিট জুড়ে দিয়ে সাতটি আসন তৈরি করা সম্ভব।

আকাশে মস্ত বড় এক চাঁদ ঝুলে আছে। সে চাঁদ দেখতে দেখতে রাতের ব্যস্ত শহরের রাস্তা পার করার অনুভূতি নিঃসন্দেহে শ্রেষ্ঠ কোনো অনুভূতির একটি হবে। চমৎকার এ ভাবনায় বাধা দিতে পারে নিরেট ছাদের শখের গাড়িটি। সেদিক থেকে ছাদখোলা গাড়ির কথাই মাথায় আসবে প্রথমে।

কিন্তু ঢাকা শহরের রাস্তা যে ধুলোর রাজ্য, সে কথা কার না জানা। তাই বলে শখের জলাঞ্জলি দিতে হবে তা কে বলেছে। টয়োটা প্রিয়াস ২০১৪ মডেলটি কিন্তু আপনার পছন্দের কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। কেননা সে গাড়িতে রয়েছে সান রুফ ও মুন রুফ সুবিধা। যাতে রাতের রাস্তায় দৌড়ে বেড়ানোর সময় মুন রুফ খুলে দিলেই হলো।

ছাদের অংশটি স্বচ্ছ কাচের তৈরি বলে চাঁদ দেখতেও বাধা থাকল না আবার ধুলোবালিও সমস্যা তৈরি করতে পারবে না কোনোভাবে। অন্যদিকে দিনের বেলা উপরের নিরেট অংশটি খুলে দিলেই কাচের ছাদ ভেদ করে রোদ খেলা করবে গাড়ির ভেতর।

সব মিলিয়ে টয়োটার চমৎকার সংযোজন প্রিয়াস আলফা ২০১৪ মডেলটি। প্রিয়াস আলফা ২০১৪ মডেলটি কেনা যাবে বাংলাদেশী মুদ্রায় ২৬ লাখ কিংবা কিছু বেশি টাকায়।

More News Of This Category