1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

পরিস্থিতি যাই হোক আপনি কেমন আচরণ করবেন সেটাই মূখ্য!

জব চাই জব চাই বলে লক্ষ লক্ষ বেকারের আর্তচিৎকার! বিশেষ করে শিক্ষিত শ্রেনী যেন জবের জন্যই জন্মেছে! বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ চুকিয়ে চাকরীর বাজারে মোটা অংকের টাকা ঘুষ দিয়ে হলেও জবটা চাই! গত কবছরে তো ভিন্ন এক ট্রেন্ড চলছে! জব মানেই বিসিএস ক্যাডার! জীবনে সফলতা মানেই যেন বিসিএস ক্যাডার!

সে কি অটুট লক্ষ! যেন আজরাইল এলেও বলবে ভাই সামনে আমার বিসিএস পরীক্ষা তুমি না হয় চান্স পাওয়ার পরে এসো! যা বলছিলাম তা আসলে অলীক কিছু নয়। এ তো নিরেট বাস্তবতা! হ্যা অবশ্যই বিসিএস ক্যাডার দরকার আছে! তার মানে এই না যে সবাইকে এই এক ট্রেন্ডের পিছনে ছুটতে হবে!

আপনার সাথে মাধ্যমিক কিংবা উচ্চ-মাধ্যমিকে ঝড়ে পড়া বন্ধুদের কথা একটু স্মরণ করুন তো। তারা তো বিসিএস ক্যাডার হওয়ার যোগ্যতা রাখছে না তাহলে কি সে বিফল। আপনি যে সময়ে বেকার ঘুরছেন। চাকুরীর জন্য চপ্পলের তলা ক্ষয় করছেন, বাপের টাকায় মাঝে মাঝে ধোয়াও উড়াচ্ছেন ঠিক সেই সময়ে আপনার সেই ঝড়ে পড়া বন্ধু হয়ত আরও কজন বেকারের রুটি রুজির ব্যবস্থা করে ফেলেছেন।

আপনি মেধাবী! আপনি ডিমান্ড করতেই পারেন একটা ভাল জবের। কিন্তু বাড়তি যোগ্যতা কি আছে আপনার? শুধুমাত্র ভাল জিপিএ দিয়ে আপনি ভাল জব ডিমান্ড করতে পারেন না। অবশ্য জব না থাকলেও সমস্যা নেই আপনার! কারন আপনার কাছে যে অজুহাত আছে তাতে আপনার সাথে তর্কে জিতে যায় এমন লোক কমই আছে!

সময়গুলো যেভাবে অবহেলায় কাটিয়েছেন তাতে কি করে যোগ্যতা অর্জন করবেন? অভিজ্ঞতা ছাড়া জব হয় না, জবে না ঢুকলে অভিজ্ঞতা হয় না এটা বলে বলেই তো আড্ডা গরম! কেনরে ভাই আড্ডা গরম করতে এত প্রচেষ্টা। তার চেয়ে নিজের অভিজ্ঞতা কি করে বাড়ানো যায় সে চেষ্টাটা অন্তত করতে পারেন।

বই পড়েন, গুগল সার্চ করেন, ইউটিউব দেখেন, সেমিনারে যান, স্কিল ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিংগুলো করেন। অন্তত নতুন কিছু প্রতিদিন জানার চেষ্টা করেন। কোন বিষয় নিয়ে কোথাও কোন তথ্য না পেলে অভিজ্ঞ কারো পরামর্শ নেন। যোগ্যতা একদিনে তৈরী হয় না। এটা ধীরে ধীরে আসে। চর্চায় বাড়ে!

একটা সিভি যেটা জব পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রথম ধাপ নিশ্চিত করে সেই সিভিটা আপনি ঠিকতম আপডেট করতে জানেন না! মার্কেটিংয়ের জবের ক্ষেত্রে ফিল্ডে কাজ না করেই অফিসে বসে এসির হাওয়া খেতে চান! ঘাম ঝড়াতে চান না কিন্তু আয়েস করতে চান! নতুন কিছু শিখতে চান না আবার অভিজ্ঞতার দোহাই দেন! সুযোগ কেউ কাউকে করে দেয় না।

নিজ যোগ্যতায় সুযোগ করে নিতে হয়! জীবনে চলার পথগুলো কখনও বন্ধুর হয় না সব সময় কন্টকময়ই হয়। নির্মম সত্য যাহা তাহা মেনে নেওয়াটা বিষাদময় হয়! এগুলো জগতের রীতি! আপনি তখনই এগুলো বদলে নিতে পারবেন যখন আপনি নিজের মত করে পরিস্থিতির সাথে খাপ খাওয়াতে পারবেন!

গরম পানিতে নরম ডিম শক্ত আচরণ করে, আবার সেই গরম পানিতে শক্ত আলু নরম হয়ে যায়! কিন্তু গরম পানিতে কফি দানা পানির রং আর স্বাদটা চেঞ্জ করে বদলে নেয় নিজের মত করে! পরিস্থিতি যাই হোক আপনি কোন ধরনের আচরণ করবেন সেটা অনেক বড় ব্যাপার।

জবের জন্য চাকর হওয়ার প্রতিযোগীতার পালে হাওয়া লাগাবেন নাকি নিজের মত করে পরিবেশটা কে মানিয়ে নিয়ে উদ্যোক্তা হবেন সেটা তো আপনার একটা মাত্র সঠিক সিদ্ধান্তের উপর করে! কারও এডভেঞ্চার পছন্দের কারও বা হুকুম তামিলের জিন্দেগী! কোনটা বেছে নিবেন সেটা জনাবের মর্জি! লেখক: মোঃ মাসুদুর রহমান মাসুদ, উদ্যোক্তার খোঁজে ডটকম।

More News Of This Category