1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

পিকআপ ভ্যানে ভ্রাম্যমান ফাস্ট ফুড ব্যবসার আইডিয়া!

প্রায়ই রাস্তার পাশে গাড়ির উপর ছোট ছোট ফাস্ট ফুডের দোকান দেখা যায়। আমরা এমন দোকানে খেয়ে অভ্যস্ত! চিকেন ফ্রাই, পিৎজা, বার্গার নয়তো ফ্রেঞ্চফ্রাই নিয়ে ভ্রাম্যমাণ এমন ফাস্ট ফুডের দোকানের সামনে আড্ডা বেশ জমে! তবে এই ফাস্ট ফুডের দোকানের কিছু বিশেষত্ব আছে।

যেমন সারাদিনের ব্যবসা শেষে রাতে দোকান বন্ধ করার পর গাড়ি চালিয়ে মালিক এই দোকান বাড়ি নিয়ে যেতে পারেন। আবার পরদিন চাইলে অন্য কোনো জায়গায় দোকান খুলে বসতে পারেন। কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন, এমন একটি ফাস্ট ফুডের দোকান দিতে কী কী লাগে?

অথবা আপনি যদি সত্যিই এমন একটি পিকআপ ভ্যান বা ট্রাককে ভ্রাম্যমান ফাস্ট ফুডের দোকান বানিয়ে নিজের ফুড স্টার্টআপ শুরু করতে চান, তবে আপনার জন্য আজকে নিবন্ধ। এই নিবন্ধে আমি এমন কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করব যা পিকআপ ভ্যানে ভ্রাম্যমাণ ফাস্ট ফুডের দোকান দিতে অবশ্য করণীয়।

১. লাইসেন্স সংগ্রহ
ফুড ট্রাক বিজনেসের প্রথম এবং প্রধান কাজ সঠিক লাইসেন্স সংগ্রহ করা। আপনার হাতে টাকা থাকলেই আপনি একটি ট্রাক কিনে ফেলতে পারেন, মন চাইলে চুলায় নতুন কোনো রেসিপি তৈরি করে ফেলতে পারেন, আর এসব নিয়ে যেকোনো ব্যস্ত সড়কের পাশে বসে যেতে পারেন।

এই কাজগুলো অনেক সহজ হলেও এই ব্যবসার লাইসেন্স পাওয়া এতটা সহজ নয়। আপনার স্টার্টআপ আপনার চোখের ছোট হলেও এর জন্য প্রয়োজন হয় একটি পূর্ণ রেস্টুরেন্টের লাইসেন্স ও সম্পর্কিত সব বিষয়ের সার্টিফিকেট।

সাধারণত ফুড ট্রাক ফাস্ট ফুড ব্যবসায় যেসব সার্টিফিকেট এবং লাইসেন্স প্রয়োজন হয় তার মধ্যে রয়েছে সিটি কর্পোরেশনের অনুমোদন, স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমোদন, পার্কিংয়ের জন্য ট্রাফিক পুলিশের অনুমোদন, ট্রাকের লাইসেন্স ও অনুমোদন এবং স্থানীয় প্রশাসনের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র।

অবশ্য এই তথ্যগুলো এত গুরুত্বের সাথে উল্লেখ করছি আপনাকে নিরুৎসাহিত করার জন্য নয়, বরং আপনার ব্যবসা নির্বিঘ্ন এবং নিরাপদ করার জন্য। বস্তুত শুধুমাত্র ফুড ট্রাক ব্যবসা নয়, যেকোনো ব্যবসার ক্ষেত্রেই এইসব লাইসেন্স এবং সার্টিফিকেটের প্রায় সবগুলো প্রয়োজন হয়। আপনার যদি সব কাগজপত্র যথাযথ থাকে, তাহলে আপনার ব্যবসা নির্বিঘ্ন এবং নিরাপদ থাকবে, যা আপনার আত্মবিশ্বাস এবং কর্মোদ্যম বহুগুণ বাড়িয়ে দিবে।

২. একটি সঠিক আকারের ট্রাক
ফুড ট্রাক ব্যবসা করতে সকল প্রকার লাইসেন্স এবং সার্টিফিকেট সংগ্রহ করার পর আপনার প্রয়োজন একটি ট্রাক। আপনার পুঁজি এবং পরিকল্পিত ব্যবসার আকারের উপর ভিত্তি করে আপনাকে ট্রাক নির্বাচন করতে হবে। আপনার পুঁজি যদি বেশি হয় এবং অনেকগুলো রেসিপি নিয়ে ব্যবসা করতে চান, তাহলে অবশ্যই আপনাকে একটি বড় ট্রাক কিনতে হবে।

আপনি চাইলে ছোট ট্রাক দিয়েও শুরু করতে পারেন। এক্ষেত্রে ব্যবসার জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা পিকআপ ভ্যান বা ট্রাক বিভিন্ন গাড়ির শোরুমে খোঁজ নিলে পেয়ে যাবেন। অথবা আপনি চাইলে অন্য যেকোনো ট্রাক বা পিকআপ ভ্যানকে দক্ষ কারিগর দ্বারা ভ্রাম্যমাণ রেস্টুরেন্টে রূপান্তরিত করতে পারেন।

৩. বিপণন
একটি ব্যস্ত সড়কের পাশে পিকআপ ভ্যানে ফাস্ট ফুডের দোকান খুলে বসলেই প্রচুর বিক্রি হবে এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। এটা সত্য যে, আপনি চলতি পথের অনেক ভোক্তাকে পেয়ে যাবেন, যারা হঠাৎই আপনার দোকানে এসে কোনো একটা ফাষ্ট ফুডের অর্ডার করবে। কিন্তু এই ভোক্তার কোনো নিশ্চয়তা নেই! আপনি কখনো এমন হঠাৎ পাওয়া ভোক্তার উপর নির্ভর করে কাঙ্ক্ষিত পরিমাণ বিক্রি নিশ্চিত করতে পারবেন না। সুতরাং কাঙ্ক্ষিত পরিমাণ বিক্রি নিশ্চিত করতে হলে আপনাকে অবশ্যই বিপণন করতে হবে।

তবে ফুড ট্রাক ব্যবসার জন্য অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মত দেশজুড়ে বা শহর জুড়ে বিজ্ঞাপনের প্রয়োজন নেই। যে এলাকায় আপনার ফাস্ট ফুডের দোকান তার আশেপাশেই আপনাকে বিজ্ঞাপন করতে হবে। তবে ভ্রাম্যমাণ দোকান ভেবে আপনি যখন যেখানে খুশি সেখানে দোকান খুলে বসলে নিশ্চিত গ্রাহকও হারাবেন। কাজেই ভ্রাম্যমাণ দোকান হলেও আপনাকে রোজ একই জায়গায় দোকান খুলে বসতে হবে।

উন্নত বিশ্বে ফুড ট্রাক ব্যবসায়ীরা এসএমএস মার্কেটিং এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রচারণাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। বাংলাদেশের বাস্তবতায় আপনি স্থানীয় মানুষ জনকে কাজে লাগিয়ে তাদের মাধ্যমে প্রচারণা চালাতে পারেন। বিশেষ দিনগুলোতে স্থানীয়দের জন্য বিশেষ অফার দিতে পারেন। সেই অফারের খবর প্রচার করতে বিজ্ঞাপনের ব্যবস্থা করতে পারেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্থানীয় তরুণদের দিয়ে রিভিউ লেখাতে পারেন, যা হতে পারে আপনার ফুড ট্রাক ব্যবসার সবচেয়ে ভালো বিপণন।

৪. আইন বুঝে এবং মেনে ব্যবসা পরিচালনা করা
এই ব্যবসায় সবচেয়ে বেশি ভুল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে দেশের বিদ্যমান আইন মানার ব্যাপারে। অনেক ব্যবসায়ী না বুঝে ভুল করে বসেন। যেমন আপনি যে এলাকায় ব্যবসা করছেন সেই এলাকার রেস্টুরেন্ট মালিক সমিতি আপনার ব্যবসাকে অনুমোদন করে কিনা? আপনি যে আকারের ট্রাক ব্যবহার করছেন তা আপনার দেশের বিদ্যমান রেস্তোরাঁ আইনের সাথে সাংঘর্ষিক কিনা? – ইত্যাদি বিষয়ে গভীরভাবে লক্ষণীয়।

তাছাড়া ভ্রাম্যমাণ এই ফাস্ট ফুডের ব্যবসা নিশ্চয়ই স্থায়ী কোনো রেস্টুরেন্ট নয়। সুতরাং এর জন্য সুনির্দিষ্টভাবে আইনের ধারাগুলো স্পষ্ট নয়। তাই এ সম্পর্কিত নির্দেশনা কিছুদিন পরপর পরিবর্তিত হতে পারে। আপনাকে সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

আবার আপনার এমন কথাও রেস্টুরেন্ট খুলে বসা উচিত না যার সামনেই আরেকটি স্থায়ী রেস্টুরেন্ট রয়েছে। এতে সামনের রেস্টুরেন্ট মালিকের সাথে আপনার খারাপ সম্পর্ক সৃষ্টি হতে পারে। সে চাইলে আইনের সহযোগিতা নিয়ে আপনাকে কোনো জটিল পরিস্থিতির মধ্যে ফেলতে পারে। সুতরাং এইসব ছোট ছোট বিষয়েও নজর রাখতে হবে।

৫. মূলধন সংগ্রহ
অবশ্যই এই ফুড ট্রাক ব্যবসার সার্বিক প্রস্তুতির জন্য আপনার কিছু নগদ অর্থের প্রয়োজন হবে, যাকে আমরা ব্যবসার ভাষায় মূলধন বলে থাকে। এই মূলধনের পরিমাণও নেহায়েতই কোনো ছোট চায়ের দোকান দেওয়ার মতো নয়! কেননা প্রথমত আপনাকে একটি বড় পিকআপ ভ্যান অথবা ট্রাক কিনতে হবে। তারপর সেই ট্রাককে রেস্টুরেন্টের মত করে সাজাতে হবে, এবং প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেনার প্রয়োজন হবে।

এর জন্য আপনি একটি প্রাথমিক পুঁজি নিয়ে ব্যবসা শুরু করার পর স্থানীয় ব্যাংক বা বিনিয়োগকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তবে এইসব যোগাযোগ সফল হবে তখনই যখন আপনার কাছে একটি চমৎকার ব্যবসা পরিকল্পনা থাকবে, যা কোনো বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান দেখে সহজেই আপনার ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে রাজি হয়ে যাবেন।

এছাড়া বাকি প্রয়োজন আপনি পরিবার, বন্ধু-বান্ধব এবং শুভাকাঙ্খীদের সহযোগিতা নিয়ে মিটিয়ে ফেলতে পারবেন। আপনি চাইলে আপনার বন্ধুদের ব্যবহার করে আপনার ব্যবসার প্রচার এবং প্রসারের জন্য ব্যাপক প্রচারণা চালাতে পারেন। আপনার সব বন্ধু, পরিচিতজন, আত্মীয় এবং স্থানীয় শুভাকাঙ্খীরা যদি আপনার ভ্রাম্যমান রেস্টুরেন্ট নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রিভিউ লেখেন, তাহলে আপনি অল্পদিনেই স্থানীয় সব মানুষের কাছে পৌঁছাতে সক্ষম হবেন, যা আপনার বিক্রি নিঃসন্দেহে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিবে।

ভ্রাম্যমান খাদ্য ব্যবসা কি সত্যি আপনার জন্য?
সব প্রস্তুতির কথা যখন শেষ, তখন কেন এই প্রশ্ন? হ্যাঁ, আপনি যদি সত্যিই ফুড ট্রাক ব্যবসার জন্য প্রস্তুত হয়ে থাকেন তবে নিশ্চয়ই আপনি রান্না করতে এবং অন্যদের খাওয়াতে ভালবাসেন? যদি তা না করে আপনি শুরুতেই অন্য পাচকের ওপর নির্ভর করে এমন একটি ব্যবসা পরিচালনা করার পরিকল্পনা করে থাকেন তবে আমি বলবো এই ব্যবসাটি আপনার জন্য নয়।

আর যদি সত্যিই আপনি সব দিক ঠিক রেখে এই ব্যবসার শুরু করতে পারেন, তবে আপনার জন্য সুখবর হলো আপনি খুব দ্রুতই অনেক উন্নতি করতে পারবেন। কেননা এক্ষেত্রে ব্যবসায় লাভ হয় অনেক বেশি। তথ্যসূত্র: ইয়ুথ কার্নিভাল।

More News Of This Category