1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

পুরাতন বাইকের চেয়েও কম দামে নতুন বাইক!

রানার বাংলাদেশী বাইক কোম্পানি গুলোর মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশী কোম্পানি হওয়া সত্ত্বেও রানার অনেকের কাছেই জনপ্রিয়। অনেক দিন থেকেই তারা বাংলাদেশে কম দামে ভালো মানের বাইক তৈরি করছে। অনেক দিন থেকে শোনা যাচ্ছিল তারা মার্কেটে নতুন বাইক নিয়ে আসবে ।সেই সুবাদে রানার বাজারে এনেছে তাদের নতুন বাইক, রানার বাইক আরটি।

রানার আরটি ঠিক যেনো নতুন রূপে ফিরে এলো রানারের দুরন্ত। দেখতে অনেকটা দুরন্তের মতই, কিন্তু দুরন্ত নয়। এটি সম্পুর্ন রূপে নতুন বাইক। রানার আরটি এর ডিজাইন, ইঞ্জিন, সাসপেনশন এবং আরো কিছু নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে যা একে রানার দুরন্ত থেকে আলাদা করেছে। সম্প্রতি এই বাইকটির ছবি ও তথ্য প্রকাশ করেছে রানার।

রানার বাইক আরটি বাংলাদেশরানারের বাইক আরটি বাইকটিতে আছে ৮৬ সিসির সিঙ্গেল সিলিন্ডারের এয়ার কুলড, SOHC ইঞ্জিন। রানার দাবি করছে এতে সর্বোচ্চ গতি পাওয়া যাবে ৭৬ কিলোমিটার ঘন্টায়। তবে এর ব্যবহারের পর জানা যাবে এর সর্বোচ্চ গতি সম্পর্কে। রানারের দুরন্ত বাইকের উভয় চাকা স্পোকের ছিল। কিন্তু রানার আরটিতে সংযোজন করা হয়েছে অ্যালয় রিম।

তাছাড়া আরটিতে কিক স্টার্টের পাশাপাশি সেলফ স্টার্ট রয়েছে। রানার আরটি একটি ৪ স্পিড গিয়ার ট্রান্সমিশন বাইক। বাইকটির জ্বালানি ধারণ ক্ষমতা ৮ লিটার। অন্যদিকে দুরন্ততে ৬ লিটারের কিছু বেশি জ্বালানির ধারণ ক্ষমতা ছিল। যেহেতু এতে জ্বালানি একটু বেশি নেয়া যায়, তাই আশা করা যায় আপনি একটা লম্বা সময় রাইড করতে পারবেন।

তাই বলা যায় যেয়ে এটি দুরন্তের চেয়ে অনেকটা গিয়ে আছে। তবে এই বাইকটি কত মাইলেজ দেবে সে বিষয়ে আমাদের কাছে আপাতত কোন তথ্য নেই। আশা করছি দ্রুতই আমরা আপনাদের জানাতে পারব বাইকটি কত মাইলেজ দেবে। রানার বাইক আরটি দামরানার বাইক আরটি এর ওজন ৮৬ কিলোগ্রাম। যা রানার দূরন্ত থেকে প্রায় ১২ কিলোগ্রাম বেশি।

বাইকটির ফ্রন্ট সাসপেনশন টেলিস্কোপিক। কিন্তু রিয়ারে আছে ৫ ইঞ্চির টুইন শক অ্যাবসর্ভার। বাইকটির উভয় চাকায় ড্রাম ব্রেক ব্যবহার করা হয়েছে। রানার বাইক আরটিতে ফ্রন্ট টায়ারের আকার ২.৫-১৭, রিয়ার টায়ার ২.৭৫-১৭। এছাড়া দুরন্তের মতই বাইকটিতে ১২ ভোল্টের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। যদিও রানার এই বাইকটি অনেকটা দুরন্তের আদলে তৈরি করেছে।

তবে বাইকটিতে ওয়েট টাইপ মাল্টিপল ক্লাচ ব্যবহার করা হয়েছে। আর রানার বাইক আরটি এর ডিজাইনেও বৈচিত্র্য রয়েছে। যেখানে দুরন্ত দেখতে খুব সাধারণ একটি বাইক। অপরদিকে আরটি এর ডিজাইন অনেক আকর্ষনীয়। প্রথম দেখায় অনেকের কাছে এই বাইকটি ভালো লাগবে। রানার আরটি এর লুকে অনেকটা স্পোর্টি করে করা হয়েছে।

রানার বাইক আরটিরানার আরটির ফুয়েল ট্যাংকের দু্পাশে কভার রয়েছে। যা সাধারনত এধরনের বাইকে দেখা যায় না। তাছাড়া ইঞ্জিনে গার্ড ব্যবহার করা হয়েছে যা আগের মডেল দুরন্ততে ব্যবহার করা হয়নি। কিন্তু দুরন্তের মতই এতে বাম্পার এবং শাড়ি গার্ড নেই। আছে লম্বা কেরিয়ার। যা রানারের আগের মডেল দুরন্তে ছিল। রানার বাইক আরটি তে এনালগ স্পিডোমিটার ব্যবহৃত হয়েছে।

এছাড়া মোবাইল চার্জের জন্য ইউএসবি পোর্ট দেয়া আছে। যাতে করে আপনি যেকোন জাগায় বসে আপনার ফোন চার্জ করে নিতে পারবেন। রানার বাইক আরটি বর্তমানে শুধু লাল ও কালো রং এ তৈরি করা হয়েছে। বাইকটির বাজার মূল্য ধরা হয়েছে ৫৫ হাজার টাকা। আশা করা যায় এই বাইকটি সকলের প্রত্যাশা পূরন করতে সমর্থ হবে। তথ্যসূত্র: বাইক বিডি।

More News Of This Category