বিনা খরচে যেভাবে নিজের যোগ্যতা বাড়াতে পারেন

হাতে একদম টাকা নেই। নেই কোনরকম খরচ-খরচা করার ইচ্ছেও। তবে পরীক্ষার পর কিংবা বিশেষ কোন কারণে হঠাৎ পেয়ে বসা লম্বা ছুটিটাতে নিজেকে আরো বেশি যোগ্য করে তোলার ইচ্ছে আছে পুরোদমে। কিন্তু কোনরকম আর্থিক ঝামেলা ছাড়া কী করে কোন প্রশিক্ষণ পাওয়া যাবে? আর কেমনই বা সেই ব্যাপারগুলো যেগুলোর চাহিদা অনেক বেশি হলেও খরচটা বলতে গেলে একেবারেই নেই? চলুন তাহলে এক পলকে দেখে আসি এমন কিছু কাজকে যেগুলো আপনার যোগ্যতাকে বাড়িয়ে তুলবে অনেক বেশি, তাও আবার কোনরকম খরচ ছাড়াই!

১. জনসম্মুখে কথা বলা: সম্প্রতি স্নাতক পাশ করা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তৃতা দিতে গিয়ে একটি বিশেষ যোগ্যতার দিকে বারবার সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ওয়ারেন বাফেট। আর সেটি হচ্ছে সবার সাথে যোগাযোগ করা ও জনসম্মুখে স্বতস্ফূর্তভাবে কথা বলতে পারার অভ্যাস। মূলত, এটি এমন একটি গুণ যেটি কিনা যে কোন স্থানে, যে কোন পর্যায়ে আপনার জন্যে হয়ে উঠবে সাহায্যকারী। আপনার অর্থনৈতিক, মানসিক, সামাজিক ও পেশাগত দিককে দ্রুত ইতিবাচক পথে নিয়ে যাবে এই যোগ্যতাটি।

যেখানে যাবেন- বিভিন্ন ধরনের ক্লাব ও গ্রুপ খুঁজে পাবেন আপনি আপনার চারপাশে, যারা অন্যকে সাহায্য করার মাধ্যমে নিজের জনসম্মুখে কথা বলার অভ্যাসটিকেও রপ্ত করে নেয়। এর ভেতরে অন্যতম একটি ক্লাব হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল টোস্টমাস্টার অর্গানাইজেশন। খুঁজে দেখুন আপনার পাশেও হয়তো এমন একটা উপকারী কিছু খুঁজে পাবেন আপনি।

২. বিদেশী ভাষা শেখা: এটা তো খুব স্বাভাবিক ব্যাপার যে, আপনি যতগুলো নতুন ভাষা শিখবেন ঠিক ততগুলো নতুন নতুন দ্বার খুলে যাবে আপনার সামনে। আর এই দরজাগুলো হচ্ছে সাফল্যের, সামনে এগোবার। পেশাগত জীবনেও আপনাকে অনেক বেশি সুযোগ করে দিতে পারে নতুন কোন ভাষা। আর তাই যদি আপনি হাতে খানিকটা সময় পেয়েই যান তাহলে বিনা খরচেই বিভিন্নরকম মাধ্যমে শিখে নিন নতুন কোন ভাষা।

যেখানে যাবেন- ইউটিউবের নানারকম টিউটোরিয়াল তো আছেই, এছাড়া নানারকম অনলাইন সংস্থা ও গ্রুপ রয়েছে নতুন ভাষা শেখার। বিশেষ করে এক্ষেত্রে ডুয়োলিঙ্গোর সাহায্য নিতে পরেন আপনি। নিতে পারেন ভাষা শেখার ওয়েবসাইট রাইপের সাহায্যও, যেটা কিনা টানা ৭ দিন আর ২৪ ঘন্টাই নিজেদের সেবা দিয়ে থাকে।

৩. ওয়েব ডেভলপমেন্ট: বর্তমান সময়ে বেশ ভালোরকম চাহিদা আর অর্থসংযোগ রয়েছে যেই কাজটির সেটি হচ্ছে ওয়েব ডেভলপমেন্ট। ভাবছেন, এটা শিখতেতো বেশ ভালোরকমের টাকা খরচ হয়ে যাবে। তাহলে আপনাকেই বলছি, এদম না। বরং নিজের হাতে থাকা সময়টুকু দিয়ে নিজের মতন করেই কোডিং শিখতে পারেন আপনি।

যেখানে যাবেন- কোডিং শেখার জন্যে নানারকম প্রতিষ্ঠান আছে এটা ঠিক। তবে সেটা একটু খরচার। তারচাইতে কোডিং শিখে ওয়েব ডেভলপমেন্টে বেশ ভালো হাত পাকিয়ে ফেলতে পারেন আপনি কোড একাডেমি নামক ওয়েবসাইটটিতে গিয়ে। এছাড়াও অনলাইনে খুঁজলে এমন অনেক জায়গা খুঁজে পাবেন আপনি যেগুলোতে কোডিং শেখায়। লিখেছেন-ফিচার রাইটার, সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি, তথ্যসূত্র: প্রিয়লাইফ।

SHARE