ভিক্ষা ছেড়ে উদ্যোক্তা এক হাজার ভিক্ষুক!

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভিক্ষাবৃত্তি করে এমন ১ হাজার ৮৬ জনকে পুর্ণবাসন করতে অর্থায়ন করেছে পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)। তাদের দেওয়া হয় নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ ও প্রশিক্ষণ। নির্দিষ্ট মেয়াদে এসব ভিক্ষুকের ৯৭ শতাংশই এখন উদ্যোক্তা। যাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নসহ আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

মাত্র তিন শতাংশ ভিক্ষুক উদ্যোক্তা হতে পারেনি। ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্সের (ডিএসসিই) গবেষণায় এসব তথ্য উঠে এসেছে। রাজধানীর পিকেএসএফের মিলনায়তনে মতবিনিময় সভার মাধ্যমে গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করা হয়।

পিকেএসএফের এ উদ্যোগের মূল্যায়ন করতে ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্সের পোস্ট গ্রাজুয়েট অ্যান্ড এন্টারপ্রাইজ ডেভেলপমেন্টের ছাত্র মো. নাজিম উদ দৌলা কর্তৃক ভিক্ষুক পুনর্বাসনের নিয়ে গবেষণা পরিচালনা করেন। গবেষণাটি তত্ত্বাবধায়ন করেন ডিএসসিইর উদ্যোক্তা অর্থনীতি বিভাগের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহবুব আলী।

মতবিনিময় সভায় পিকেএসএফের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. জসীম উদ্দিনের সভাপতিত্ত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহবুব আলী। সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পিকেএসএফের সিনিয়র মহাব্যবস্থাপক মো. মশিয়ার রহমান এবং অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিক্সের প্রভাষক সাদিয়া ইসলাম ও পিকেএসএফের সহকারী মহাব্যবস্থাপক দীপেন কুমার সাহা।

মো. নাজিম উদ দৌলা উল্লেখ করেন যে, ভিক্ষুক পুনর্বাসনের মাধ্যমে পিকেএসএফ সামাজিক দায়িত্ব পালন করছে। তার মতে উদ্যোক্তা তৈরির জন্য ও স্বাবলম্বী করার জন্য পিকেএসএফ সমৃদ্ধি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। যেটি একটি টেকসই কার্যক্রম হিসেবে পাওয়া গেছে।

প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহাবুব আলী বলেন, ডিএসসিইর গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদের এ ধরনের উদ্ভাবনী কার্যক্রমের কারনে ভিক্ষুকরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পেরেছে।

তার উন্নয়ন চিন্তা সবসময়ই অন্তর্ভূক্তিমূলক এবং সাম্যতার নিরিখে করে থাকেন। এজন্য পিছিয়ে পড়া কিংবা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীটির জীবন মান উন্নয়নে তিনি নিরসল প্রচেষ্টা করছেন। যার প্রমান স্বল্প সময়ের মধ্যে ভিক্ষুকদের ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে উদ্যোক্তা তৈরি করতে সহায়তা করেছেন।

ড. মো. জসীম উদ্দিন বলেন, সামাজিক দায়িত্ব পালনসহ বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পিকেএসএফ অনন্য ভূমিকা পালন করছে। ভিক্ষুক পুনর্বাসনসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিকে মানবমর্যাদায় প্রতিষ্ঠা করার জন্য পিকেএসএফ ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাবে বলে জানান তিনি।

SHARE