1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

ভিডিও এডিটিং ভিত্তিক ৫টি সহজ ও লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া!

চারপাশে ভিডিওর ছড়াছড়ি। Facebook, Whatsapp, Youtube, Vimeo, TikTok সব ওয়েবসাইট এ দেখতে পাবেন বিভিন্ন ধরণের ভিডিও।বিয়ের ভিডিও, অনুষ্ঠান-এর ভিডিও, খাবার/ ভ্রমণ-এর ভিডিও, শিক্ষামূলক ভিডিও, ছোট সিনেমা ও তথ্যচিত্র। আছে হাসি,মজার ভিডিও; আছে খবরের ভিডিও, আছে তথ্যমূলক ভিডিও, বিজ্ঞাপন, পড়ার ভিডিও, আরো অনেক কিছু।

গবেষণা অনুযায়ী, ২০১৯ সাল থেকেই ভিডিও চলেছে খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে| ডাটা অথাৎ ইন্টারনেট সস্তা হয়ে যাওয়া তে সবাই এখন প্রচুর পরিমানে ভিডিও দেখেন। ভাল এবং আকর্ষণীয় ভিডিও হলেই পেয়ে যাবেন দর্শক। এবং এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করে আপনিও নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।অথবা নিজের কাজের সাথে সাথেই শুরু করতে পারেন পার্ট টাইম ব্যবসা। আসুন দেখে নেই কি কি সুযোগ আছে এখানে।

ভিডিও এডিটিং-এর ব্যবসা : ১) বিবাহ ভিডিও : বিবাহের মুহূর্তগুলি ধরে রাখতে এখন বিবাহের সময়ে পেশাদার ভিডিওগ্রাফার ও ভিডিও সম্পাদক-এর প্রয়োজন হয়। বিবাহের সাথে থাকে বিবাহের আগের ভিডিও, বিবাহের আমন্ত্রণ-এর জন্যে ভিডিও, ইত্যাদি অনেক কিছুর ডিমান্ড আছে মার্কেট-এ। টেক্সট, ফিল্টার, গতি, পরিবর্তন প্রভাব, ইত্যাদি ছাড়াও হলিউডের মত সিনেমাটিক ভিডিও প্রভাব দিয়ে বানানো হয় বিবাহের ভিডিও। বিবাহ ভিডিওর চাহিদা প্রতি বছর ক্রমাগত বেড়েই চলছে। এডিটিং এর কাজ জানলেই বাড়ি থেকেই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

২) শর্ট ফিল্ম/ তথ্যচিত্র: Youtube-এ শর্ট ফিল্ম দেখেন? সবার হাতেই মোবাইল – বাস-এ ট্রাম-এ ট্রেন-এ দেখবেন সময় কাটানোর জন্যে সবাই Youtube-এ সিনেমা দেখেন। আর যারা সিনেমা বানায় তারা Youtube থেকে বিজ্ঞাপন মারফত টাকাও আয় করতে পারে। আপনিও নিজের সৃজনশীলতা দিয়ে শর্ট ফিল্ম বানাতে পারেন। তার এডিটিং করে Youtube, Vimeo ইত্যাদি ওয়েবসাইট এ দিয়ে বাড়ি থেকে বসে
বাড়তি আয় করতে পারেন।

৩) খাবার/ ভ্রমণ-এর ভিডিও ব্লগ: ঘুরতে যেতে চাইলে বা ভালো রেস্টুরেন্ট এ খেতে যাওয়ার আগে আপনি কি ইন্টারনেট-এ review দেখেন? অনন্য ভিডিওর ডিমান্ড মার্কেট-এ প্রচুর। অনেকে নিজের ব্যবসা বাড়ানোর জন্যে এই ভিডিও বানান, অনেকে আবার নিজের অভিজ্ঞতা ও অনুভবের বিষয়ে ভিডিও বানান, অনেকে প্রচারমূলক ভিডিও বানান। সম্পূর্ণ আপনার ওপর নির্ভরশীল। কোম্পানির প্রচারমূলক ভিডিও বানিয়ে আয়ে করতে পারেন বা নিজে থেকে ভিডিও বানালে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়ে করতে পারেন।

৪) শিক্ষামূলক ভিডিও: কোন বিষয়ে জানতে চাইলে বা নতুন কিছু বিষয়ে শিখতে চাইলেই আমরা ইন্টারনেট-এ সেই বিষয়ে ভিডিও খুঁজি। আপনার কোন বিষয় দক্ষতা থাকলে সেটা কাজে লাগান। যেমন স্কুল বা কলেজ-এর পাঠ্যক্রম জানা থাকলে তার ওপর ভিডিও বানিয়ে আপনি কোর্স তৈরী করতে পারেন। সবার কাছেই আজকাল স্মার্টফোনে বাড়ি থেকে বসেই আপনার কোর্স করতে পারবে ছাত্রছাত্রীরা। অনলাইন টিউশন এই ভাবে শুরু করতে পারেন। এই ধরনের ভিডিও সম্পাদনা করতে সহজ কিছু কলা-কৌশল জানলেই করতে পারবেন।

৫) বিজ্ঞাপন: আরেকটু বড়মাপের কিছু করতে চাইলে নিজের বিজ্ঞাপনের এজেন্সী শুরু করতে পারেন। ব্যবসা উদ্বোধন, প্রোডাক্ট ভিডিও, ক্রেতাদের প্রশংসাপত্র, এবং খাঁটি বিজ্ঞাপন বানিয়ে আয়ে করতে পারেন। এক্ষেত্রে লাগবে ভাল এবং আকর্ষণীয় ভিডিও এডিটিং এর দক্ষতা। তথ্যসূত্র: ইন্টারনেট।

More News Of This Category