1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :
সফলতার গল্প :

মুক্তা চাষে সফল দুই যুবক

মুক্তা উৎপাদনে সফলতা পেয়েছেন নীলফামারীর দুই যুবক। নীলফামারীর ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামের দুই উদ্যোমী যুবক তাদের পুকুরেই ঝিনুকের মুক্তা চাষ শুরু করেছেন। পাশাপাশি একই পুকুরে মাছ চাষও করছেন তারা।

তবে মুক্তার বাজারজাতকরণকে প্রধান বাধা মনে করছেন এ উদ্যোক্তারা। অপরদিকে মিঠা পানিতে মুক্তা চাষের মাধ্যমে বেকারত্ব দূরীকরণসহ বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব বলে মনে করছে স্থানীয় মৎস্য বিভাগ।

২০১৮ সালের জুনে ডোমার উপজেলার সেলিম ও মামুন নামের দুই যুবক বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে যান মাছ চাষের ওপর ট্রেনিং নিতে। সেখানেই জানতে পারেন মিঠা পানিতেও মুক্তা চাষ করা যায়। পরে প্রশিক্ষণ নিয়ে ১টি পুকুরে ৬টি ঝিনুক নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে চাষ শুরু করেন। সাফল্য পেয়ে পরবর্তিতে বৃহৎ পরিসরে ঝিনুক চাষ শুরু করেন তারা।

ইতোমধ্যে তারা ২০০ পিস মুক্তা উৎপাদন করে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটে জমা দিয়েছেন। তবে মুক্তার বাজারজাতকরণ নিয়ে কিছুটা চিন্তিত তারা। মুক্তাচাষি জুলফিকার রহমান বাবলা বলেন, আমরা কিছু মুক্তা চাষ করে বিএফআরআইতে পাঠিয়েছি। তারা কী ফিডব্যাক দেবে সেই অপেক্ষায় আছি।

মুক্তা চাষে জেলা মৎস্য বিভাগের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে। সফলতা আসায় বেকারত্ব দূরীকরণের পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা আয় করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন মৎস্য বিজ্ঞানীরা।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড.খোন্দকার রশীদুল হাসান বলেন, বেকারত্ব দূর হওয়ার একটা সম্ভাবনা তৈরি হবে। এগুলো বিদেশে রপ্তানি করলে বৈদেশিক মুদ্রা পাওয়া যাবে।

More News Of This Category