1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

কর্মীর সাথে সম্পর্ক গড়ায় ম্যাকডোনাল্ডেসের সিইও বরখাস্ত

কর্মীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলার কারণে ফাস্ট ফুডের বিশ্ব বিখ্যাত চেইন ম্যাকডোনাল্ডস তাদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে (সিইও) বরখাস্ত করেছে। এ ব্যাপারে মার্কিন এই ফাস্ট ফুড জায়ান্ট জানিয়েছে, সম্পর্কটি দুজনের সম্মতিতে হলেও সিইও স্টিভ ইস্টারব্রুক ‘প্রতিষ্ঠানের নীতি ভঙ্গ’ করেছেন এবং ‘সিদ্ধান্ত গ্রহণে অদক্ষতার’ পরিচয় দিয়েছেন।

সিইও ব্রিটিশ ব্যবসায়ী স্টিভ ইস্টারব্রুক (৫২) প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের কাছে পাঠানো এক ই-মেইলে তাঁর সম্পর্কের বিষয়টি জানান এবং এটা ভুল বলে স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানের যে মূল্যবোধ রয়েছে, এতে আমি বোর্ডের সঙ্গে একমত যে আমার সরে দাঁড়ানোর সময় হয়েছে।’ বোর্ড ঘটনাটি পর্যবেক্ষণের পর ভোটের মাধ্যমে ইস্টারব্রুকের সরে যাওয়ার বিষয়টিতে সমর্থন দেয়।

ইস্টারব্রুকের সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর আগেই বিচ্ছেদ হয়েছে। তিনি ১৯৯৩ সালে লন্ডনে ম্যাকডোনাল্ডসের ব্যবস্থাপক হিসেবে যোগ দেন। ধীরে ধীরে তিনি প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পদে আসীন হন। তবে মাঝখানে তিনি ম্যাকডোনাল্ডস ছেড়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। ২০১১ সালে তিনি পিৎজা এক্সপ্রেস এবং পরে এশিয়ান ফুড চেইন ওয়াগামামাতে কর্মরত ছিলেন। ২০১৩ সালে তিনি ম্যাকডোনাল্ডসে ফিরে আসেন।

পর্যায়ক্রমে প্রতিষ্ঠানটির যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপের উত্তরাঞ্চলের প্রধান হন। ২০১৫ সালে তিনি সিইও হিসেবে নিয়োগ পান। প্রতিষ্ঠানের খাবারের মেন্যুর মান উন্নয়ন এবং রেস্টুরেন্টকে নতুন করে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে ইস্টারব্রুককে ব্যাপকভাবে কৃতিত্ব দেওয়া হয়। তাঁর নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠানটি ক্রেতাদের সুবিধার্থে খাবার ডেলিভারি ও অর্থ পরিশোধের বিষয়টিতে আরও জোর দেয়।

তবে ম্যাকডোনাল্ডসের বিরুদ্ধে শপের কর্মীদের কম পারিশ্রমিক দেওয়া নিয়ে সমালোচনা রয়েছে। ২০১৮ সালে ইস্টারব্রুকের ১ কোটি ৫৯ লাখ ডলারের (১৩৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকার বেশি) বেতন-ভাতা নিয়েও আলোচনা-সমালোচনা হয়। মধ্যম বেতনের একজন কর্মীর তুলনায় তাঁর বেতন ছিল ২ হাজার ১২৪ গুণ বেশি। সেখানে মধ্যম পর্যায়ের কর্মীর বেতন ৭ হাজার ৪৭৩ ডলার (৬ লাখ ৩৩ হাজার টাকার বেশি)।

ইস্টারব্রুকের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন সম্প্রতি ম্যাকডোনাল্ডস ইউএসএর প্রেসিডেন্ট পদে নিযুক্ত ক্রিস কেম্পসজিনিস্কি। ক্রিস এক বিবৃতিতে ম্যাকডোনাল্ডসে অবদান রাখার জন্য ইস্টারব্রুককে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘স্টিভ ইস্টারব্রুক আমাকে ম্যাকডোনাল্ডসে নিয়ে এসেছিলেন। তিনি ছিলেন ধৈর্যশীল এবং উপকারী পরামর্শদাতা।’ প্রতিষ্ঠানের নীতির বিরুদ্ধে গিয়ে এভাবে কর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের কারণে গত বছর ইনটেলের সিইও ব্রায়ান ক্রেজানিচকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল।

More News Of This Category