যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারে ধস!

গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ সপ্তাহ পার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজার। পুরো সপ্তাহ জুড়ে এই পুঁজিবাজারের প্রধান তিন সূচকই ব্যাপক দরপতন দেখেছে। মূলত চীনের সঙ্গে বাণিজ্য ইস্যু, ট্রাম্পের আপত্তি সত্ত্বেও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতি নির্ধারণী সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে পুঁজিবাজারে।

গত সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি দরপতন হয়েছে নাসডাক সূচকটির। প্রযুক্তিনির্ভর কোম্পানি-ভিত্তিক এই সূচকের দর কমেছে ২০ শতাংশ। এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সূচক কমেছে ৭ শতাংশ এবং ডাও জোনস ইন্ডাস্ট্রিয়াল সূচক কমেছে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ। ডাও জোনসের এই দরপতন ২০০৮ সালের পর শতাংশের দিক দিয়ে সবচেয়ে বড় দরপতন।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষকেরা বলছেন, চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক এখন কিছুটা শান্ত। বেশ কয়েকটি অর্থনৈতিক নির্দেশক ভালো অবস্থানে আছে। এমন অবস্থায় ফেডের সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত পুঁজিবাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

গত এক সপ্তাহে ফেসবুক, টুইটারের শেয়ারের দর কমেছে ৬ শতাংশ। আমাজনের দরপতন হয়েছে ৫ শতাংশ। অ্যাপল ও মাইক্রোসফটের দর কমেছে ৩ শতাংশ। গত শুক্রবার সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস নাসডাক সূচক কমে ৩ শতাংশ। এসঅ্যান্ডপি ৫০০ কমেছে ২ শতাংশ ও ডাও জোনস সূচক কমেছে ১ দশমিক ৮ শতাংশ।

SHARE