1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

যুক্তরাষ্ট্রে জুতা রপ্তানী বেড়েছে

বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে চীনের জুতা রপ্তানি কমলেও ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, কম্বোডিয়া, ব্রাজিল ও বাংলাদেশের বেড়েছে। বাজারটিতে চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে কেবল বাংলাদেশের জুতা রপ্তানি বেড়েছে ৩৫ শতাংশ।

ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব কমার্সের আওতাধীন অফিস অব টেক্সটাইল অ্যান্ড অ্যাপারেলের (অটেক্সা) তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ১২ কোটি ৬২ লাখ ডলার মূল্যের ৪৬ লাখ ২১ হাজার জোড়া জুতা রপ্তানি হয়েছে। গত বছরের একই সময়ে রপ্তানি হয়েছিল ৯ কোটি ৩২ লাখ ডলারের ৩৫ লাখ ৬৭ হাজার জোড়া জুতা। সেই হিসাবে এবার রপ্তানি বেড়েছে ৩৫ দশমিক ৪০ শতাংশ।

বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের চামড়ার জুতাই বেশি রপ্তানি হয়। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে রপ্তানি হওয়া ১২ কোটি ৬২ লাখ ডলারের মধ্যে ১১ কোটি ৯৪ লাখ ডলারেরই চামড়ার জুতা রপ্তানি হয়েছে। বাজারটিতে জুতা রপ্তানিতে দুই বছর ধরে বাংলাদেশ ভালো করছে। ২০১৭ সালে ১১ কোটি ৩৩ লাখ এবং গত বছর ১৩ কোটি ৩২ লাখ ডলারের জুতা রপ্তানি হয়েছে।

কয়েকজন রপ্তানিকারক জানান, বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক ক্রেতা চীন থেকে কিছু ক্রয়াদেশ অন্য দেশে সরাচ্ছে। তা ছাড়া ভিয়েতনামেও উৎপাদন খরচ বেড়ে যাচ্ছে। তাই টিম্বারল্যান্ড, মেসিসসহ যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি ব্র্যান্ড বাংলাদেশ থেকে জুতা কিনছে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের ব্র্যান্ডগুলো চামড়াবিহীন জুতা আমদানি করে বেশি। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ বেশ পিছিয়ে।

অটেক্সার তথ্যানুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের জুতার বাজার আড়াই হাজার কোটি ডলারের বেশি। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে ১ হাজার ৯৬২ কোটি ডলারের জুতা আমদানি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোক্তারা। তার মধ্যে চীন রপ্তানি করেছে ৯৬৯ কোটি ডলারের জুতা। অবশ্য গত বছরের একই সময়ে দেশটি রপ্তানি করেছিল ১ হাজার ৬১ কোটি ডলারের জুতা। তার মানে চলতি বছর চীনের রপ্তানি কমে গেছে ৯২ কোটি ডলার।

যুক্তরাষ্ট্রে জুতা রপ্তানিতে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভিয়েতনাম। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে দেশটি রপ্তানি করেছে ৫১০ কোটি ডলারের জুতা। গত বছরের একই সময়ের চেয়ে তাদের রপ্তানি বেড়েছে ১০ দশমিক ৮৬ শতাংশ। তৃতীয় অবস্থানে থাকা ইন্দোনেশিয়ার জুতা রপ্তানি বেড়েছে প্রায় ১০ কোটি ডলারের।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশটি রপ্তানি করেছে ১২৬ কোটি ডলারের জুতা। তারপর ইতালি ১১৪ কোটি, ভারত ৩৪ কোটি, কম্বোডিয়া ৩৩, মেক্সিকো ২৯, স্পেন ১৭, ডমিনিকান রিপাবলিক ১৫, ব্রাজিল ১৫ কোটি ডলারের জুতা রপ্তানি করেছে।

জানতে চাইলে অ্যাপেক্স ফুটওয়্যারের ডিএমডি আবদুল মোমেন ভূঁইয়া বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জুতার বড় ব্যবসা করে টিম্বারল্যান্ড। বর্তমানে ব্র্যান্ডটি তাদের ৩০ শতাংশ জুতাই বাংলাদেশের কয়েকটি কারখানা থেকে নিচ্ছে। তা ছাড়া বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক ক্রেতা বাংলাদেশে আসছেন। তাঁরা খোঁজখবর নিচ্ছেন। আশা করছি, ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্রে আমাদের জুতা রপ্তানি আরও বাড়বে।’ তথ্যসূত্র: প্রথমআলো।

More News Of This Category