1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

যে উপায়ে ধৈর্য্য বাড়াবেন!

যে ব্যক্তি ধৈর্য্য ধারণ করতে পারে জীবনের যেকোন ক্ষেত্রে সে উন্নতি করতে পারবে। অন্যদিকে অধৈর্য্য মানুষের অধঃপতনের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর এই ধৈর্য্য বাড়াতে নিজেই নিজেকে সাহায্য করতে পারেন। শুধূ প্রয়োজন নিজের একান্ত চেষ্টা। যা আপনাকে আয়ত্বে এনে দিতে পারে এই মূল্যবান সম্পদ। চলুন জেনে নেয়া যাক কয়েকটি উপায়-

ইতিবাচক মনোভাব, জীবনের সর্বক্ষেত্রে ইতিবাচক মনোভাব রাখুন। এতে হতাশ হয়ে অস্থির আচরণ লোপ পাবে। এছাড়া নিজের ইতিবাচক মানসিকতার কারণেই সামনে কি হবে তা দেখতে আগ্রহী হবেন। কথা বলুন ভেবে চিন্তে, যেকোন কথা বলার আগে ভেবে নিন কি বলছেন। এতে প্রতিক্রিয়া কি হতে পারে। বলা উচিত হচ্ছে কিনা। এই চিন্তা করার বিষয়টিই ধৈর্য্য।

খাবার খান ধীরে, অধৈর্য্য হয়ে দ্রুত খেলে আপনার পরিপাক ক্রিয়া অস্বাভাবিক হয়ে স্থূলতার কারণ হবে। বড় ব্যাপার, এতে আপনার অস্থিরতা বৃদ্ধি পাবে। তাই খাওয়া ধীরে খাওয়ার অভ্যাস করুন। গুরুত্ব নির্ধারণ করুন, প্রাত্যহিক কার্যাবলীর মধ্যে কাজের গুরুত্ব নির্ধারণ করুন। গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারগুলো মাথায় রেখে এগুলো করার জন্য সংকল্প করুন। সময়মত কাজগুলো সম্পাদন করুন। এতে মনের ভেতরের অস্থিরতা হ্রাস পাবে।

নিজেকে বোঝান, কোন কিছু পেতে হলে অপেক্ষা করতে হবে। এর বিকল্প নেই। এটি যত তাড়াতাড়ি নিজেকে বুঝাতে পারবেন ততই ধৈর্য্যকে গ্রাস করতে পারবেন। বাস্তববাদী হোন, বাস্তবতা কঠিন হলেও তা মেনে নেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে। বুঝতে হবে, যা হওয়ার ছিল তাই হয়েছে। যা ভবিষ্যতে হওয়ার, তাই হবে। এ নিয়ে হা-হুতাশ করে লাভ নেই।

নিজের উপর আস্থা রাখুন, যেকোন ব্যাপারে নিজের উপর আস্থা রাখতে হবে। কোন ভাবেই আস্থা হারানো চলবে না। নিজের উপরেই যদি আস্থা না থাকলে সহজেই ধৈর্য্যহারা হবেন আপনি।

তথ্যসূত্র: জাগো নিউজ ২৪ ডটকম।

More News Of This Category