1. [email protected] : editorpost :
  2. [email protected] : jassemadmin :

সামাজিক পরিবেশে অসামাজিক নয় তো শিশু!

নিজের পরিচিত পরিবেশ-পরিজনের বাইরে গেলেই অপ্রস্তুত হয়ে যান কেউ কেউ। এমন ধরনের মানুষ আশপাশে কম নয়। কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে নতুন কারও সঙ্গে পরিচয় হলে দেখা যায় সৌজন্য, কুশলবিনিময় করতে পারেন না ঠিকমতো। বারবার ভাবতে থাকেন কী বলবেন, কী বলা উচিত, কিন্তু কিছুই বলতে পারেন না। নতুন একটা পরিবেশে গেলে খাপ খাওয়াতে কষ্ট হয়। নিত্যদিনের কাজকর্ম করতে প্রতিনিয়ত কত মানুষের সঙ্গে কথাবার্তা বলতে হয়, এর মাঝে তো পরিচিত-অপরিচিত মানুষের সংখ্যা প্রায় সমানই হবে।

নতুন কারও সঙ্গে পরিচয় হলে আমরা অনেকেই প্রথম প্রথম তেমন একটা কথা বলতে পারি না। বারবার মাথায় আসে, যাকে বলছি তিনি না আবার আমার কথাটা কীভাবে নেন। অনেক সময় এই ভয়ে কেউ নিমন্ত্রণ করলে, সেই নিমন্ত্রণেও যেতে চান না। অসামাজিক হিসেবে লোকের কাছে পরিচিতিও পেয়ে যান এ ধরনের লোকজন।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক আহমেদ হেলাল বলেন, যাঁরা এ ধরনের কাজ করেন, তাঁরা সব সময় একধরনের সামাজিক উদ্বিগ্নতায় ভোগেন। লোকের সঙ্গে কথা বলতে গেলে কিংবা নতুন একটা সামাজিক পরিবেশে নিজের অবস্থা নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকেন, খাপ খাওয়াতে পারেন না, নার্ভাস হয়ে যান। এটা একধরনের সামাজিক দক্ষতার অভাব। এমন পরিস্থিতিতে ব্যক্তিকে এই উদ্বিগ্নতাটা বাদ দিতে হবে। যেকোনো পরিবেশে সহজ ও স্বাভাবিক আচরণ করতে হবে। এমনকি ছোট থেকেই এর চর্চা করা উচিত।

বড় হয়ে এক দিনে এই স্বতঃস্ফূর্ত ভাব আসবে না। শিশু বয়স থেকে এদিকে মনোযোগ দিতে হবে। আপনি যদি আপনার শিশুর গণ্ডি সীমাবদ্ধ করে দেন, তার রুটিন হয় ধরাবাঁধা, তখন সামাজিক দক্ষতা গড়ে উঠবে না। কারণ, শিশুর মনের বিকাশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যত দূর সম্ভব একজন শিশুকে বিকশিত হতে দেওয়া উচিত। তাহলে আর ভবিষ্যৎ জীবনে তার এ ধরনের সমস্যা হবে না।

শিশুকে তার পরিবেশ ও প্রতিবেশী এ দুটো বিষয়ের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার, মিথস্ক্রিয়া স্থাপনের সুযোগ করে দিতে হবে। সামাজিক অনুষ্ঠানগুলোতে তাকে অংশগ্রহণে উৎসাহিত করতে হবে। জনসমক্ষেও হয়তো শিশুসুলভ দু-একটা কথা বলল সে, তা-ও তাকে নিরুৎসাহিত করা যাবে না। একজন মানুষ কিন্তু চট করে বড় হয়েই সামাজিক অনুষ্ঠানগুলোতে মানিয়ে নিতে পারে না, ছোটবেলা থেকেই একটা প্রশিক্ষণের মধ্যে থাকতে হয়।

প্রাত্যহিক জীবনে বিভিন্ন দিকে চলাফেরা থেকে শুরু করে সামাজিক অনুষ্ঠানগুলোতে, সব জায়গায়ই আমাদের প্রতিনিয়ত পরিচয় ঘটছে নতুন মানুষদের সঙ্গে। নতুন পরিবেশের সঙ্গে। তাই এসব ব্যাপারের সঙ্গে আমাদের যত দ্রুত সম্ভব খাপ খাইয়ে নেওয়া উচিত। নিজের ওপর ভরসা রাখতে হবে।

তথ্যসুত্র: প্রথমআলো ডটকম।

More News Of This Category