1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :
সফলতার গল্প :

হাজার কোটি ডলারের যৌথ প্রকল্পে স্বাক্ষর সৌদি আরামকোর

চীনা কনগ্লোমারেট নরিনকোর সঙ্গে যৌথ উদ্যোগের একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত তেল কোম্পানি সৌদি আরামকো। এ প্রকল্পের মাধ্যমে চীনের পানজিন শহরে একটি রিফাইনিং ও পেট্রোকেমিক্যাল কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পটিতে ব্যয় হবে ১ হাজার কোটি ডলারের বেশি। খবর রয়টার্স।

গতকাল শুক্রবার আরামকো জানিয়েছে, প্রকল্পের অংশ হিসেবে নরিনকো ও আরামকো যৌথভাবে পানজিন সিনকেনের সঙ্গে সম্মিলিতভাবে একটি নতুন প্রতিষ্ঠান গঠন করবে। এর নাম হবে হুয়াজিন আরামকো পেট্রোকেমিক্যাল কোম্পানি। এ প্রকল্প থেকে প্রতিদিন তিন লাখ ব্যারেল জ্বালানি উৎপাদন করা হবে।

এশিয়া সফরের অংশ হিসেবে বর্তমানে বেইজিংয়ে রয়েছেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। বেইজিং সফরে গিয়েই নতুন এ চুক্তিতে সই করেন যুবরাজ সালমান।

আরামকোর বিবৃতিতে বলা হয়, নতুন প্রতিষ্ঠানটির ৩৫ শতাংশ মালিকানা থাকবে আরামকোর হাতে। নরিনকো ও পানজিন সিনকেনের হাতে থাকবে যথাক্রমে ৩৬ ও ২৯ শতাংশ মালিকানা। রিফাইনিং ও পেট্রোকেমিক্যাল কমপ্লেক্সটিতে ৭০ শতাংশ ক্রুড ফিডস্টক সরবরাহ করবে আরামকো।

ধারণা করা হচ্ছে, ২০২৪ সাল থেকে এ কার্যক্রম শুরু হবে। আরামকো জানায়, প্রকল্পটির অর্থমূল্যের হিসেবে এটিই বিদেশী কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চীনের সর্ববৃহৎ যৌথ উদ্যোগ।

আরামকোর নির্বাহী প্রধান আমিন নাসের এক বিবৃতিতে জানান, নতুন চুক্তির মাধ্যমে স্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে, চীনের সঙ্গে আমাদের এখন শুধু ক্রেতা-বিক্রেতার সম্পর্ক নয়। ক্রেতা-বিক্রেতার সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং উন্নয়নে অবদান রাখতে নতুন কৌশল গ্রহণ করেছে সৌদি আরামকো। আর এর মাধ্যমে চীনে আমরা বড় ধরনের বিনিয়োগ করতে পারব।

আরামকোর বিবৃতিতে বলা হয়, চীনে খুচরা ব্যবসা শুরু করারও পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৯ সালের শেষ নাগাদ সৌদি আরামকো, নর্থ হুয়াজিন ও লিয়াওনিং ট্রান্সপোর্টেশন কনস্ট্রাকশন ইনভেস্টমেন্ট গ্রুপ মিলে একটি যৌথ কোম্পানি গঠনেরও আশা করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে কিছু নির্দিষ্ট বাজারে জ্বালানি স্টেশনের একটি নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে।

More News Of This Category