1. editor@islaminews.com : editorpost :
  2. jashimsarkar@gmail.com : jassemadmin :

এবার মানব কল্যাণে কাজ করে দেখাতে চান শীর্ষ ধনী বেজোস

মানবকল্যাণে কাজ করার ক্ষেত্রে খুব বেশি নামডাক নেই মার্কিন ধনকুবের জেফ বেজোসের। তবে সেই অপবাদ মনে হয় ঘুচাতে চাইছেন ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজন ডটকমের এই প্রতিষ্ঠাতা। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কাজ করতে এক হাজার কোটি ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জেফ বেজোস। বিশ্বের সবচেয়ে শীর্ষ ধনী বেজোস জানিয়েছেন, এই অর্থ বিজ্ঞানী, অধিকারকর্মী ও অন্য গোষ্ঠীগুলোর কাজের জন্য ব্যয় করা হবে।

বেজোস বলেন, ‘আমি জ্ঞাত উপায়গুলো প্রশস্ত করতে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ধ্বংসাত্মক প্রভাবের বিরুদ্ধে লড়াই করার নতুন উপায়গুলো আবিষ্কার করতে সবার সঙ্গে কাজ করতে চাই।’ বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, গতকাল এক ইনস্টাগ্রাম পোস্টে বেজোস বলেন, ‘এই গ্রীষ্ম থেকেই তহবিলের অর্থ বিতরণ শুরু হবে।

বেজোস আর্থ ফান্ড চালু করার কথা ঘোষণা করতে পেরে আমি আজ আনন্দিত। জলবায়ু পরিবর্তন আমাদের এই গ্রহের জন্য এখন সবচেয়ে বড় হুমকি। আমি অন্য সবার সঙ্গে কাজ করতে চাই। এটি মোকাবিলায় যে উপায়গুলো আমাদের জানা, তার পথ প্রশস্ত করতে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ধ্বংসাত্মক প্রভাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের নতুন উপায়গুলো অনুসন্ধান করতে চাই।’

বেজোসের আনুমানিক সম্পদের পরিমাণ ১৩ হাজার কোটি ডলার, অর্থাৎ এর ৮ শতাংশ তিনি জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ব্যয় করবেন।সম্প্রতি বেজোসের নিজের প্রতিষ্ঠানের কিছু কর্মী তাঁকে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কিছু করার জন্য আহ্বান জানান। এ ইস্যুতে এমনকি ধর্মঘটেও যান কিছু কর্মী। এ ছাড়া ব্লু অরিজিন স্পেস প্রোগ্রামে অর্থায়ন করেছেন বেজোস, যা ইতিমধ্যে সমালোচিত হয়েছে।

অভিযোগ আছে অন্য ধনকুবেরদের মতো মানবকল্যাণে খুব বেশি কিছু করেননি বেজোস। গতকালের আগে তাঁর সবচেয়ে বড় দান ছিল ২০০ কোটি ডলারের। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে গৃহহীন মানুষ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ওই তহবিল দেন তিনি। গত বছর বিশ্বব্যাপী ধনকুবেরদের মানবকল্যাণে অর্ধেকের বেশি সম্পত্তি দান করার বিষয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘দ্য গিভিং প্লেজ’–এ সই না করায়ও সমালোচিত হন বেজোস।

More News Of This Category